হবিগঞ্জের বাহুবলে দুই স্কুলছাত্রীকে পরিত্যক্ত ঘরে আটকে রেখে হাত পা ও মুখ বেঁধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর অভিযুক্ত দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাহুবলের মিরপুর ও হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল এলাকায় পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- বাহুবল উপজেলার বার আউলিয়া গ্রামের নুরুল হক মিয়ার ছেলে খোকন মিয়া (১৬) ও একই গ্রামের আব্দুল আউয়াল মিয়ার ছেলে সুমন মিয়া (১৭)।

বাহুবল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) আলমগীর কবির জানান, ধর্ষের শিকার দুই স্কুলছাত্রী উপজেলার সাটিয়াজুড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

বুধবার (২৮ জুলাই) সন্ধায় তারা বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি দোকানে প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে যায়। এসময় খোকন ও সুমন কৌশলে তাদেরকে ফুসলিয়ে গ্রামের একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে যায়। সেখানে তাদের হাত পা মুখ বেঁধে রাতভর ধর্ষণ করে। ভোরে দুই কিশোর চলে গেলে তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে। দুপুরে নির্যাতিতা এক ছাত্রীর বাবা থানায় মামলা দায়ের করেন।

রাত সাড়ে ৮টার দিকে পুলিশ অভিযান চালিয়ে দুই কিশোরকে গ্রেপ্তার করে।

ওসি আরো জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় জড়িত অন্য কেউ থাকলে তাদেরও দ্রুত আইনের আওতায় নিয়ে আসা হবে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/কাজল/আরআই-কে