করোনাভাইরাসের কারণে দেড় বছর বন্ধ থাকার পর আগামীকাল রোববার থেকে খুলছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হচ্ছে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা জারি করেছে সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তর। তাতে স্পষ্ট করে বলা হয়েছে, সারাদেশে ২০২১ ও ২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা বাদে বাকি শ্রেণিগুলোর শিক্ষার্থীরা সপ্তাহে একদিন ক্লাসে যাবে এবং ওইদিন তাদের দুটি করে ক্লাস হবে। কিন্তু সরকারি এমন নির্দেশনাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে একদিনে পাঁচটি করে ক্লাস রেখেছে সিলেটের স্কলার্সহোম শিবগঞ্জ ক্যাম্পাস!

এমনকি সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে স্কলার্সহোম টিফিনের জন্যও আলাদা সময় রেখেছে। টিফিন ব্রেকের বিষয়টি রুটিনেও উল্লেখ করা হয়েছে।

স্কলার্সহোমের এমন কাণ্ডে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা বলছেন, একটা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কিভাবে এমন ‘কাণ্ডজ্ঞানহীন’ হয়!

জানা গেছে, মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) গত বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) রুটিন তৈরির একটি নির্দেশনা জারি করে। সে নির্দেশনায় বলা হয়-

*২০২১ ও ২০২২ সালের এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী এবং পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা প্রতিদিন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আসবে।

*প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ, ষষ্ঠ, সপ্তম, অষ্টম ও নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা এক দিন প্রতিষ্ঠানে আসবে।

*সপ্তাহে প্রতিদিন নির্দিষ্ট শ্রেণিতে দুটি করে ক্লাস ধরে প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রুটিন তৈরি করবে।

কিন্তু মাউশি’র এমন নির্দেশনা অমান্য করে সিলেটের স্কলার্সহোম শিবগঞ্জ ক্যাম্পাসে প্রাথমিকের শিক্ষার্থীদের ক্লাস একদিনে পাঁচটি করে রাখা হয়েছে!

সিলেটভিউ২৪ডটকম’র হাতে আসা স্কলার্সহোম শিবগঞ্জ ক্যাম্পাসের ক্লাস ওয়ানের রুটিনে দেখা যায়, আগামীকাল রোববার এই শ্রেণির পাঁচটি ক্লাস রাখা হয়েছে। সকাল ৯টায় ইংরেজি প্রথম পত্র দিয়ে শুরু হবে ক্লাস। ধারাবাহিকভাবে গণিত, বাংলা, ইংরেজি দ্বিতীয় পত্র ও বিজ্ঞান বিষয়ের ক্লাস হবে। ক্লাস চলবে ১২টা ৫০ অবধি।

এর মধ্যে টিফিন ব্রেকের জন্য সকাল সোয়া ১১টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

জানতে চাইলে স্কলার্সহোম শিবগঞ্জ ক্যাম্পাসের প্রিন্সিপাল প্রাণ বন্ধু বিশ্বাস এ বিষয়ে বিশদ কিছু বলতে রাজি হননি। তিনি বিষয়টি নিয়ে এই ক্যাম্পাসের ইনচার্জ বেগম আফতারী এবং পরিচালনার দায়িত্বে থাকা সংশ্লিষ্ট ট্রাস্টের সেক্রেটারি লোকমান উদ্দিনের সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন।

এদিকে, স্কলার্সহোমের এমন ক্লাস রুটিনে অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। তারা এমন সিদ্ধান্তে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষার্থীর মা সিলেটভিউকে বলেন, ‘সরকার যেখানে বলছে, সপ্তাহে একদিনে দুটি ক্লাস হবে, সেখানে স্কলার্সহোম পাঁচটি ক্লাস রেখেছে! একদিকে তারা সরকারের নির্দেশনা অমান্য করছে, অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে। এই সময়ে ছোট ছোট শিক্ষার্থীদের বেশি সময় বাইরে থাকা মানেই করোনায় আক্রান্তের ঝুঁকি বেশি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি, সরকারি তরফে বলা হয়েছে, আপাতত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ক্লাস এমনভাবে হবে যেন শিক্ষার্থীদের টিফিনের প্রয়োজন না হয়। কিন্তু স্কলার্সহোম সেই নির্দেশনাও মানছে না।’

সিলেটভিউ২৪ডটকম/পিডি/আরআই-কে