এমনটা কী আগে কখনো হয়েছিল? কে জানে! তবে আগে হোক না হোক, আজ এক অন্যরকম স্কুলে ফেরার সাক্ষী হলো সিলেটের শিক্ষার্থীরা। দেড় বছর পর মুখে মাস্ক পরে তারা হাজির হলো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। ফুল দিয়ে বরণ করা হলো তাদেরকে। কপালে যন্ত্র তাক করে মাপা হলো শরীরের তাপমাত্রাও।

এই অন্যরকম স্কুলে ফেরার মধ্য দিয়ে সিলেটে দেড় বছর পর আজ রোববার থেকে খুলেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। শুধু সিলেটই নয় অবশ্য, সারাদেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোই আজ থেকে খুলে দেওয়া হয়েছে।

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে গেল বছরের মার্চে বন্ধ করে দেওয়া হয় সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরপর একের পর এক ছুটি শুধু বেড়েছে। অবশেষে দীর্ঘ ৫৪৩ দিন পর খুলেছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের দ্বার।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে থেকে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার্থী, পঞ্চম, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির প্রতিদিন এবং প্রথম থেকে চতুর্থ ও ষষ্ঠ থেকে নবম শ্রেণিতে সপ্তাহে একদিন ক্লাস নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

চলতি বছরের শেষভাগে এসএসসি ও এইচএসসির পাশাপাশি পঞ্চমের প্রাথমিক সমাপনী, অষ্টমের জেএসসি-জেডিস এবং প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়ার পরিকল্পনার কথাও জানিয়েছে মন্ত্রণালয়।

আজ সকালে সিলেটের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে দেখা যায়, হাতে ফুল দিয়ে শিক্ষার্থীদের বরণ করছেণ শিক্ষক-শিক্ষিকারা। সবার চোখেমুখে উচ্ছ্বাস। দীর্ঘদিন পর প্রিয় আঙিনায় ফেরার আনন্দ।

বেশ কয়েকজন শিক্ষক-শিক্ষিকা জানিয়েছেন, শুরুতেই শিক্ষার্থীদের পড়ালেখায় চাপ দেওয়া হবে না। দীর্ঘদিন পর তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ফিরেছে। আপাতত পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার দিকেই বেশি নজর দেওয়া হচ্ছে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/আরআই-কে