চাঁদপুরের কচুয়ার আটোমোড় গ্রামে প্রেম সংক্রান্ত জের ধরে প্রেমিকার ছুরিকাঘাতে প্রেমিক সোহাগ প্রধান গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। পরে প্রেমিকা সানজিদা আক্তার মিতু বিষপানে আত্মহত্যা করেন। চাঞ্চল্যকর এ ঘটনাটি চাঁদপুরের কচুয়ার আটোমোড় গ্রামে ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার বিকালে প্রেমিক সোহাগ প্রধান আটোমোড় গ্রামের পার্শ্ববর্তী মসজিদের ঘাটলায় গোসল করতে গেলে একই গ্রামের মনির হোসেনের মেয়ে বারৈয়ারা উচ্চ বিদ্যালয়ের চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার্থী সানজিদা আক্তার মিতু ক্ষোভে তাকে আকস্মিকভাবে গলায় চুরি দিয়ে আঘাত করে। পরে গুরুতর অবস্থায় সোহাগকে উদ্ধার করে কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে হাসপাতালে ভর্তি করলে তার অবস্থায় আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকার সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাঠানো হয়।

একপর্যায়ে প্রেমিকা সানজিদা আক্তার মিতু অভিমানে বিষপান করলে তাকে উদ্ধার করে দাউদকান্দির গৌরীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথিমধ্যেই সে মারা যায়।

প্রেমিক সোহাগ প্রধান একই উপজেলার চাংপুর গ্রামের মৃত মোস্তাক মিয়ার ছেলে। তিনি আটোমোড় গ্রামের হোসেন মিয়ার হোটেলে কারিগর ছিলেন।

সানজিদা আক্তারের মা লাকী বেগম ও বাবা মনির হোসেন মেয়ের প্রেমের বিষয়ে জানেন না বলে জানান এবং এ ঘটনায় কারও প্রতি অভিযোগ নেই বলে তারা দাবি করেন। তবে স্থানীয়রা বলেন, সোহাগ খুবই ভালো ছেলে ছিলেন। এমন ঘটনায় এলাকাবাসী বিস্মিত হয়েছেন।

কচুয়া থানার ওসি মো. মহিউদ্দিন বলেন, ধারণা করা হচ্ছে প্রেম সংক্রান্ত বিষয়ে তাদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সানজিদা আক্তারের লাশ উদ্ধার করে চাঁদপুর মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। তদন্তসাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/জিএসি-০২


সূত্র : যুগান্তর