তিনি আন্তর্জাতিক খেলছেন ৬ বছর ধরে। বয়সটাও ২৭ ছাড়িয়েছে। জাতীয় দলে সুযোগের কথা যদি ধরা হয়, তবে অকৃপণভাবেই তাকে জায়গা দিয়েছেন নির্বাচকরা। তিনি প্রতিভাবান, এই স্লোগানটাই সামনে এগিয়ে এনে বারবার গলার রগ ফুলিয়েছেন জাতীয় দলের নির্বাচকরা। কিন্তু লিটন দাস সেই আস্থার প্রতিদানে হতাশ করেছেন বারবার। সেই বারবারের পাল্লা তো ভারি হচ্ছেই!

রোববার শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের ম্যাচে ফের ছন্নছাড়া লিটনেরই দেখা মিলল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হারের পর তাকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন বিশ্লেষেকরা। কথায় আছে ক্যাচ ফস্কে গেলো তো ম্যাচটাও ফস্কে গেল! তার দুটি ক্যাচ মিসে সর্বনাশ। সুপার টুয়েলভে ৫ উইকেটের হারে অভিযান শুরু বাংলাদেশের।

তবে ক্যাচ মিসের কারণে দল হেরেছে তা মানতে নারাজ মুশফিকুর রহিম। এমন কী লিটনকে কাঠগড়ায় দাঁড়ও করাচ্ছেন না জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক। রোববার ম্যাচ শেষ হতেই শারজাহর প্রেস কনফারেন্স রুমে এসে মুশফিক বলছিলেন, ‘দেখুন, এই জন্য তাকে দায় দেওয়ার কিছু নেই। লিটন দাস আমাদের দলের বেস্ট ফিল্ডার। আমার কাছ থেকে পড়লে হয়তো হতো। আজকের উইকেট ভালো ছিল। আমাদের সুযোগগুলো নিতে পারলে হতো।’

সুযোগগুলো ঠিকঠাক কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ। ১৭১ রান পুঁজি নিয়েও তাই জেতা হলো না! মুশফিক যতোই তার সতীর্থকে আড়াল করার চেষ্টা করুন-লিটনের ক্যাচ মিসেই যে সব শেষ! তিনি লিটন যেভাবে দুটো ক্যাচ ফেললেন, তারপর আর ম্যাচ জেতা যায় না। প্রথমে আফিফ হোসেনের ভানুকা রাজাপাকসার তুলে দেওয়া ক্যাচ ছাড়লেন লিটন। তার দুই হাতের ফাঁক গলে বল আবার বাউন্ডারি হয়ে গেল। ১৪ রানে জীবন পান রাজাপাকসে।

ম্যাচে ফের সেই লিটনের ভুল। ভয়ঙ্কর হয়ে উঠা চারিথ আসালাঙ্কাকে ফেরানোর সুযোগ যখন সামনে আবারও ক্যাচ ছাড়েন লিটন দাস। মুস্তাফিজুর রহমানের অফ স্টাম্পের বাইরের বল হাঁকান আসালাঙ্কা। দৌড়ে আসা লিটন হাতেই গিয়ে পড়ল বল। কিন্তু হাতে মাখন থাকলে কী আর কিছু ধরা যায়? ক্যাচ সহজ ক্যাচ দিয়েও বাঁচলেন আসালাঙ্কা। তখন তার রান ৬৩ রানে।

তারপর সেই দুই ব্যাটসম্যানেই ব্যাটেই জিতল শ্রীলঙ্কা। রাজাপাকসে ৩১ বলে ৫০ রানে ফিরলেন। আর আসালাঙ্কা দলকে জিতিয়ে অপরাজিত ৪৯ বলে ৮০ রানে! দুজনই কৃতজ্ঞ থাকবেন লিটনের কাছে। তাকে ধন্যবাদ দিতেই পারে লঙ্কানরা।

অথচ বল হাতে দলকে ফিরিয়ে এনেছিলেন সাকিব আল হাসান। টানা দুই উইকেটে নিয়েছিলেন। কিন্তু সেটা কাজে লাগাতে পারেনি বাংলাদেশ। এই হারে একটা ব্যাপার হয়তো প্রায় নিশ্চিত হয়ে গেল, জায়গা হারাচ্ছেন লিটন দাস। তার সবশেষ ৫ ইনিংস ১৬, ২৯, ৬, ৫ ও ১! এর মধ্যে আবার ক্যাচ ধরতেই ভুলে গেছেন। ২৭ অক্টোবর আবুধাবিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচেই হয়তো কাটা পড়তে যাচ্ছে লিটন কুমারের নাম! অনেক তো হল, আর কতো?

সিলেটভিউ২৪ডটকম/জিএসি-১৪


সূত্র : ঢাকা পোস্ট