গ্রেপ্তার হওয়া বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি) 'ষড়যন্ত্রের' যেসব অভিযোগ এনেছিল, সেগুলোর প্রাথমিকভাবে কোনো প্রমাণ মেলেনি বলে জানিয়েছেন বোম্বে হাইকোর্ট।

আরিয়ান খানের জামিনের আদেশের অনুলিপি প্রকাশের পর আজ শনিবার এই তথ্য জানা গেছে। ১৪ পৃষ্ঠার আদেশে বিচারপতি নীতিন সামব্রে জানিয়েছেন, মাদক মামলায় ষড়যন্ত্রের জন্য আরিয়ানদের একই অপরাধের উদ্দেশ্য ছিল বলে এনসিবির পক্ষ থেকে যে দাবি করা হয়েছে, তা খারিজ করে দেওয়া হচ্ছে। হাইকোর্ট জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা ক্রুজে যাচ্ছিলেন, শুধু সেই ভিত্তিতে তাঁদের বিরুদ্ধে মাদক আইনের ২৯ নম্বর ধারা প্রয়োগ করা যাবে না।

বিচারপতি জানিয়েছেন, আরিয়ানের কাছ থেকে কোনো মাদক উদ্ধার হয়নি। আরবাজ ও মুনমুনের কাছ থেকে যে মাদক উদ্ধার করা হয়েছে, তা মাদক আইন অনুযায়ী ‘কম’। আপাতত যা তদন্ত হয়েছে, তা থেকে উঠে এসেছে যে মুনমুনের সঙ্গে যাননি আরিয়ান ও আরবাজ।

পাশাপাশি আরিয়ানের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটেও কোনো ষড়যন্ত্রের প্রমাণ মেলেনি বলে জামিনের আদেশে জানিয়েছেন হাইকোর্ট। টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবর, জামিনের আদেশের অনুলিপি প্রকাশের পর বলিউডের বিশিষ্ট পরিচালক সঞ্জয় গুপ্ত টুইট বার্তায় লিখেছেন, বোম্বে হাইকোর্ট আরিয়ান খানকে নির্দোষ বলেছেন। কিন্তু আরিয়ান এবং তাঁর মা-বাবা যে কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে গিয়েছেন, তার ক্ষতিপূরণ কে দেবে?

মুম্বাইয়ের উপকূলে একটি প্রমোদতরীতে চলমান মাদক পার্টি থেকে ২ অক্টোবর রাতে আরিয়ান খানসহ মোট আটজনকে আটক করে নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। দীর্ঘ ১৬ ঘণ্টা জেরার পর ৩ অক্টোবর বিকেলে আরিয়ান খানকে গ্রেপ্তার দেখায় এনসিবি। গত ২৮ অক্টোবর মাদক মামলায় জামিন পান আরিয়ান। মুম্বাইয়ের আর্থার রোড জেল থেকে ছাড়া পান ৩০ অক্টোবর।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/জিএসি-১৫


সূত্র : কালের কণ্ঠ