কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. সোহেল ও তার সহযোগী হরিপদ সাহা খুনের ঘটনায় কাভারিং ফায়ারিংয়ের সিসিটিভি ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। কাল রাত থেকে ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে।

ভাইরাল ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, কালো মুখোশ পড়ে অনবরত গুলি করে আতঙ্ক সৃষ্টি করছে দুইজন অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী। এ সময় কেউ ইট মেরে প্রতিরোধের চেষ্টা করলেই তাকে গুলি শুরু করেন।

ভিডিও ফুটেজে এক যুবকের হাতে দুটি এবং আরেক যুবকের হাতে একটি পিস্তল দেখা যায়। তবে পুলিশের উদ্ধার করার অস্ত্রের সাথে হামলাকারীদের অস্ত্রের মিল পাওয়া যায়নি। হত্যাকাণ্ডে অনেকে অংশগ্রহণ করেছে। পুরো ভিডিও সামনে আসলে জানা যাবে উদ্ধার করা অস্ত্র তারা ব্যবহার করেছি কি না।

তবে পাথুরিয়াপাড়ায় থ্রি-স্টার এন্টারপ্রাইজ নামে কাউন্সিলরের ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে সামনের খুঁটিতে উভয় পাশে তিনটি সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে। যা থেকে কাউন্সিলর হত্যাকাণ্ডের পুরো ঘটনা উঠে আসবে। তবে তিনটি সিসিটিভি ক্যামেরা ফুটেজ ঘটনার পর র‌্যাব নিয়ে যায়। পরিবারের ধারণা এসব সিসিটিভি ফুটেজে শুরু থেকে শেষ সব উঠে আসবে।

নিহত কাউন্সিলর মো. সোহেল ভাই রুমন জানান, সিসিটিভি ফুটেজ আমাদের বাসাতে রেকর্ড হয়। ঘটনার পর আমরা যখন ভাইকে নিয়ে হাসপাতালে যাই তখন র‌্যাবের একটি টিম সব ভিডিও নিয়ে যায়। আমরাও সংগ্রহ করতে পারিনি।

র‌্যাব-১১, সিপিসি-২ কুমিল্লা ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল আশে পাশে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। তবে তদন্তের স্বার্থে আপতত কিছু বলতে পারছি না।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/আরআই-কে