প্রথমে ছাত্রদল। পরে স্বেচ্ছাসেবক লীগ। এখন আবার যুবদল। এ যেন একই কৌটার ভেতরে অনেক রং!

শহিদুজ্জামান সুমন। সিলেট নগরীর খারপাড়া এলাকার বাসিন্দা। প্রথমে জড়ান ছাত্রদলের রাজনীতির সঙ্গে। ‘নিখোঁজ’ ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনার গ্রুপ করতেন। ছিলেন মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক।

তবে সুমন একসময় ভিড়েন সিলেট স্বেচ্ছাসবেক লীগ নেতাদের পাশে। ওই সময় তিনি স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মী হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিতেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর একটি অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থের ঠিক পেছনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায় তাকে। তবে সেখানে কোনো পদ-পদবী না পেয়ে স্বেচ্ছাসবেক লীগ নেতাদের পাশ ছাড়েন সুমন। এবার তিনি যুবদল কর্মী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছেন। সম্প্রতি যুবদলের বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচিতে তাকে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে দেখা যাচ্ছে।

তবে এমন অভিযোগ অস্বীকার করে সুমন সিলেটভিউ-কে বলেন, আমি ছাত্রদল করতাম। এখন যুবদল করি। স্বেচ্ছাসেবক লীগের রাজনীতির সঙ্গে কখনও জড়িত ছিলাম না। এলাকার হিসেবে তাদের সম্মান করি, তাই হয়তো কোনো সামাজিক প্রোগ্রামে তাদের সঙ্গে কোনো ছবি তোলা হয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থ সিলেটভিউ-কে বলেন, সুমন নামের কোনো স্বেচ্ছাসেবক লীগ কর্মীকে আমি চিনি না।

আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবাষির্কীতে তাঁর পেছনে দাঁড়িয়ে থাকার বিষয়ে সুব্রত পুরকায়স্থ বলেন, কতজনই কত উদ্দেশে কতভাবে ছবি তুলে। সবকিছু খেয়াল করা কি সম্ভব?


সিলেটভিউ২৪ডটকম / ডালিম