সিলেট গণপরিবহনে চলাচলে হাফ ভাড়া দিতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। পরিচয়পত্র প্রদর্শন করলে নগর এক্সপ্রেসের বাসে তাদের কাছ থেকে হাফ ভাড়া রাখা হবে। সংশ্লিষ্টদের কাছ থেকে এমন তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, সম্প্রতি হাফ ভাড়ার (অর্ধেক ভাড়া) দাবিতে শিক্ষার্থীরা ঢাকায় আন্দোলন করেছেন। সেই আন্দোলনের মুখে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি শুরুতে ঢাকায় হাফ ভাড়া কার্যকরের ঘোষণা দেয়। কিন্তু শিক্ষার্থীরা সারাদেশে হাফ ভাড়ার দাবি তুলেন।


এর প্রেক্ষিতে চট্টগ্রামে সংবাদ সম্মেলন করে সেখানে হাফ ভাড়া নেওয়ার ঘোষণা দেন বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির কেন্দ্রীয় মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ। শুধু তা-ই নয়, সারাদেশে হাফ ভাড়ার দাবিও মেনে নেন তিনি।

এনায়েত উল্যাহ বলেন, ‘মেট্রোপলিটন শহরসহ দেশের যেসব শহরে সিটি সার্ভিস চালু আছে, সেসব শহরে এই ঘোষণা কার্যকর হবে। তবে দূরপাল্লার যানবাহন কোনোভাবেই এই ঘোষণার আওতায় থাকবে না। দেশের সব শহরে, যেখানে সিটি সার্ভিস চালু আছে, সেখানে হাফ ভাড়ার বিষয়টি আমরা গত কয়েকদিন ধরে মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করেছি।’

সিলেটে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া নেওয়ার বিষয়টি সিলেটভিউকে নিশ্চিত করেছেন নগর এক্সপ্রেস মালিক সমিতির সভাপতি ও সিলেট সিটি কাউন্সিলর মখলিছুর রহমান কামরান।

তিনি বলেন, ‘আমরা যখন নগর এক্সপ্রেস চালু করি, তখনই মূলত বলেছিলাম যে, শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে হাফ ভাড়া নেওয়া হবে। এখন যেহেতু বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে, আমরা আবারও বলছি, শিক্ষার্থীরা হাফ ভাড়া দিয়ে নগর এক্সপ্রেসে যাতায়াত করতে পারবেন।’

তিনি বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা নিজেদের পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে হাফ ভাড়া দিতে পারবেন।’

তবে হাফ ভাড়ার সুবিধা শুধুমাত্র শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা থাকা অবস্থায় পাওয়া যাবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলে হাফ ভাড়া কার্যকর হবে না।

সংশ্লিষ্টরা জানান, সিলেট মহানগরী ও শহরতলির বিভিন্ন রুটে নগর এক্সপ্রেসের ২১টি বাস রয়েছে। তবে প্রায়ই দু-চারটি বাসে সমস্যা থাকে বলে সবগুলো চলাচল করতে পারে না।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/আরআই-কে