সিলেট নগরীর শাহজালাল উপশহরের আই ব্লকের ‘শাহজালাল উপশহর একাডেমি’ সংলগ্ন খেলার মাঠে মাসব্যাপী অনুষ্ঠিত ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প পণ্য মেলার শেষ দিনে সেখানে গিয়ে মারা গেলেন সিলেটের এয়ারপোর্ট থানার ধুপাগুল এলাকার যুবক ও খাদিমনগর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মো. সালা উদ্দিন (৩২)। তিনি ধুপাগুল গ্রামের মনির মিয়ার ছেলে।

তিনি সোমবার (৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যারাতে মেলা গেটের সামনের রাস্তায় হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে পড়ে যান। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।


সিলেট ভিউ'র খবর নিয়মিত পেতে

দিয়ে যুক্ত থাকুন

তবে সালা উদ্দিনের মৃত্যু নিয়ে কোনো রহস্য নেই। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু ঘটেছে বলে চিকিৎসকদের বক্তব্য। বিষয়টি সিলেটভিউকে নিশ্চিত করেছেন সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের (এসএমপি) শাহপরাণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আনিসুর রহমান এবং মৃত সালা উদ্দিনের চাচা বিলাল হোসেন।

পুলিশ ও নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বিকেল ৩টার দিকে সালা উদ্দিন উপশহরের মেলায় যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন। সন্ধ্যা ৭টার দিকে তার মোবাইল ফোন থেকে পরিবারে ফোন করে পুলিশ জানায়, সালা উদ্দিন মেলার সামনের রাস্তায় অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন এবং তাকে উদ্ধার করে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

খবর পেয়ে সালা উদ্দিনের পরিবারের সদস্যরা ওসমানী হাসপাতালে ছুটে এসে দেখতে পান- তিনি মারা গেছেন।

সালা উদ্দিনের চাচা বিলাল হোসেন সিলেটভিউ-কে বলেন, আমার ভাতিজার মৃত্যু নিয়ে আমাদের কারো প্রতি কোনো সন্দেহ বা অভিযোগ নেই। ডাক্তার বলছে- হৃদরোগজনিত কারণে মৃত্যু ঘটেছে। তার হাই প্রেশারও ছিলো।

এ বিষয়ে ওসি সৈয়দ আনিসুর রহমান বলেন, পরিবারের পক্ষ থেকে যেহেতু কোনো অভিযোগ নেই তাই কোনো মামলা হয়নি। আমরা খোঁজ নিয়ে দেখেছি, সালা উদ্দিনের সঙ্গে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ডাক্তারের বক্তব্যমতে- হৃদরোগজনতি কারণেই তার মৃত্যু হয়েছে।


সিলেটভিউ২৪ডটকম / ডালিম