করোনাভাইরাসের টিকা না নেওয়ায় নিজের ১২ বছর বয়সী সন্তানের সঙ্গে দেখা করার অধিকার হারিয়েছেন কানাডার এক বাবা। উত্তর আমেরিকার এই দেশটির কুইবেকের একজন বিচারক এই রায় দিয়েছেন।

করোনার টিকা না নেওয়া ওই বাবা মহামারিতে সুরক্ষিত থাকতে আরোপিত স্বাস্থ্য বিষয়ক বিধিনিষেধেরও বিরোধী। বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা এএফপি।


সিলেট ভিউ'র খবর নিয়মিত পেতে

দিয়ে যুক্ত থাকুন

গত ২৩ ডিসেম্বর বাবা ও সন্তানের সাক্ষাৎ নিয়ে আদালত ওই রায় দেন। রায়ে আদালত জানিয়েছেন, বাবা করোনা টিকা না নেওয়ায় তার সঙ্গে ১২ বছর বয়সী ওই সন্তানের সাক্ষাৎ শিশুটির পক্ষে ‘ভালো হবে না’।

ডিসেম্বরের তৃতীয় সপ্তাহে আদালত এই রায় দেওয়ার পর প্রাথমিকভাবে এটি কুইবেকের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম লা দেভইর-এ প্রকাশিত হয়। টিকা না নেওয়ায় আপাতত আগামী ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত সন্তানের সঙ্গে দেখা করার বিষয়ে অভিযুক্ত বাবার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন আদালত।

ভাইরাসের অতিসংক্রামক ধরন ওমিক্রনের দাপটে কানাডাজুড়ে সম্প্রতি সংক্রমণ ও প্রাণহানি বেড়েছে। আর এ কারণেই টিকা নেওয়ার পক্ষে আদালত শক্ত অবস্থান নিয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। রায়ে ওই বিচারক জানিয়েছেন, ‘মহামারির বর্তমান প্রেক্ষাপট বিবেচনায় ওই ব্যক্তি যদি টিকা নেওয়া ও করোনা বিধিনিষেধের বিষয়ে বিরোধিতা করতেই থাকেন, তাহলে তার (বাবার) সঙ্গে সন্তানের সাক্ষাৎ শিশুদের জন্য ভালো হবে না।’

এএফপি বলছে, গত বছরের শেষের দিকে ছুটির দিনগুলোতে নির্ধারিত সময়ের চেয়ে বেশি সময় সন্তানদের সঙ্গে কাটাতে চেয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। তবে ওই ব্যক্তির স্ত্রী তার সেই আবেদন প্রত্যাখান করেন। পরে বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ায়।

ওই ব্যক্তির স্ত্রী আদালাতে জানিয়েছেন, সম্প্রতি তিনি বুঝতে পারেন যে, তার স্বামী করোনা টিকা নেননি। এবং সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিগত পোস্টগুলো করোনা সংক্রান্ত বিধিনিষেধের বিরোধী।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্বামীর সঙ্গে ১২ বছর বয়সীসহ আরও দুই সন্তানকে নিয়ে তাদের মা কুইবেকে বসবাস করেন। বাকি দুই সন্তানের একজনের বয়স ৪ বছর এবং অন্যজনের ৭ মাস। করোনার টিকা নেওয়ার মতো বয়স এখনও তাদের হয়নি। কারণ কানাডায় এখন ৫ বছরের বেশি বয়সী শিশুদের করোনা টিকা প্রদানের অনুমোদন রয়েছে।

বিচারক বলছেন, ১২ বছর বয়সী ওই সন্তান করোনার টিকা নিয়েছে। কিন্তু তার বাবা টিকা না নেওয়ায় টিকা নেওয়া সন্তানের সুরক্ষা হ্রাস পেতে পারে। কারণ কুইবেকে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট বেশ ছড়িয়ে পড়েছে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম /ডেস্ক/জিএসি-১৮


সূত্র : ঢাকা পোস্ট