একাদশ শ্রেণির ভর্তিতে প্রথম ধাপে আবেদন শেষ হয়েছে রোববার রাত ১২টায়। প্রথম ধাপে আবেদন করেছেন ১২ লাখ ৮৬ হাজার ১৫৫ জন শিক্ষার্থী। এরইমধ্যে ভর্তি ফি পরিশোধ করেছেন ১২ লাখ ৯৭ হাজার ৪৭১ জন। তারা সবাই মোবাইল ব্যাংকিং বিকাশ, নগদ, রকেট, উদয় ও সোনালী সেবার মাধ্যমে ফি পরিশোধ করেছেন।


আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সোমবার এ তথ্য জানিয়েছে। কারিগরি শিক্ষাবোর্ড তাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি কার্যক্রম করে থাকে।
 


প্রথম ধাপের ফলাফল আগামী ৫ সেপ্টেম্বর রাত ৮টার পর প্রকাশ করা হবে। নির্বাচিত শিক্ষার্থীরা ৭ থেকে ১০ সেপ্টেম্বর নির্বাচন নিশ্চয়নের সুযোগ পাবেন।  এরপর ১২ থেকে ১৪ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় ধাপের আবেদন গ্রহণ করা হবে এবং তার ফল প্রকাশ করা হতে পারে ১৬ সেপ্টেম্বর। প্রথম মাইগ্রেশন ফল প্রকাশ করা হবে ১৬ সেপ্টেম্বর। ১৭ ও ১৮ সেপ্টেম্বর নির্বাচন নিশ্চয়নের সুযোগ পাবেন দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচিতরা।

আর ২০ ও ২১ সেপ্টেম্বর তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন নিয়ে ২৩ সেপ্টেম্বর ফল প্রকাশ করা হবে। ২৪ ও ২৫ সেপ্টেম্বর তৃতীয় ধাপের নির্বাচন নিশ্চয়ন চলবে। আর ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তি চলবে। ক্লাস শুরু হবে ৮ অক্টোবর।


নির্বাচিত শিক্ষার্থীকে ৩৩৫ টাকা দিয়ে প্রাথমিকভাবে ভর্তি নিশ্চিত করতে হবে। আগে প্রাথমিক নিশ্চয়ন ফি ছিল মোট ৩২৮ টাকা।
 

শিক্ষা বোর্ড জানিয়েছে, একাদশে ভর্তিতে মোট আসন আছে ২৬ লাখের বেশি। এবার এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬ লাখ ৪১ হাজার ১৪০ জন। সে হিসাবে একাদশে ভর্তিতে এবার আসন সংকট নেই। তবে কাঙ্ক্ষিত কলেজে চান্স পাওয়া নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকবে। কলেজগুলোর ৯৩ শতাংশ আসন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এসব আসনে ভর্তির জন্য মেধার ভিত্তিতে শিক্ষার্থী নির্বাচন করা হবে। বাকি ৭ শতাংশ আসনে কোটায় শিক্ষার্থী মনোনয়ন দেওয়া হবে। এবার একাদশে ভর্তি হতে ৫টি থেকে ১০টি কলেজে আসন পছন্দ দিতে পেরেছেন শিক্ষার্থীরা।

 

চলতি বছর অনলাইনে নির্ধারিত ওয়েবসাইটে একাদশ শ্রেণির ভর্তির আবেদন করতে হচ্ছে। অনলাইন ছাড়া সাধারণ শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ম্যানুয়ালি ভর্তির আবেদন নেওয়া হচ্ছে না। ১৫০ টাকা আবেদন ফি দিয়ে সর্বনিম্ন পাঁচটি ও সর্বোচ্চ দশটি কলেজে।

 


    

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/পল্লব-০৪