দীর্ঘদিন ধরে ক্লাসে উপস্থিতির হার মাসে ছয় থেকে সাত দিন। সে কারণে কয়েকজন ছাত্রীকে পরীক্ষায় বসার অনুমতি দেননি স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা। এর ফলে অভিভাবকদের সঙ্গে নিয়ে এসে শিক্ষিকাদের সামনেই ব্লেড নিয়ে হাত কাটার হুমকি দেন ছাত্রীরা। সেই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।
 

সোমবার (২০ নভেম্বর) এই ঘটনা ঘটেছে পশ্চিমবঙ্গের কামারহাটি এলাকার দক্ষিণেশ্বর সারদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে।
 


জানা গেছে, ক্লাসে উপস্থিতি অনিয়মিত হওয়ায় প্রতিষ্ঠানটির একাদশ শ্রেণির ছয় ছাত্রীকে টেস্ট পরীক্ষায় বসতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। সোমবার সকালে স্কুলে পরীক্ষা দিতে এসে তারা জানতে পারেন বিষয়টি।
 

তখন ব্যাগ থেকে ব্লেড বের করে হাতের শিরা কাটার হুমকি দেন এক ছাত্রী। তাদের সঙ্গে উপস্থিত অভিভাবকরাও স্কুলগেটের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন।
 

এমনকি, প্রধান শিক্ষিকার কক্ষে ঢুকে তাকেও হুমকি দেন ওই ছয় ছাত্রী। প্রধান শিক্ষিকার সামনেই ব্লেড হাতে এক ছাত্রী বলতে থাকেন, পরীক্ষায় বসতে দেবে না, এ কোন অসভ্যতা।
 

পুরো ঘটনাটি মোবাইল ফোনে ভিডিও করেন ওই প্রতিষ্ঠানেরই এক শিক্ষিকা। এতে ছাত্রীদের পাশাপাশি অভিভাবকদেরও চিৎকার করতে দেখা যায়।
 

এ ঘটনায় স্কুল কর্তৃপক্ষ কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি। তবে শিক্ষাঙ্গনে অভিভাবকদের ‘দাদাগিরি’র ঘটনায় সরব হয়েছেন শিক্ষামহলের একাংশ। তাদের মতে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অভিভাবকরা এ ধরনের ঘটনা ঘটালে তাহলে ছাত্রছাত্রীরা কী শিখবে?


 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-৪৬১


সূত্র : জাগোনিউজ