বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনি সিলেটের নূর চৌধুরীকে দেশে ফেরত পাঠানোর জন্য কানাডার কাছে নতুন করে আবেদন করবে বাংলাদেশ। কানাডায় অবাধে বসবাসের বিষয়ে নতুন একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রকাশের পর এ উদ্যোগ নিচ্ছে কানাডায় অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন।
 

কানাডায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার খলিলুর রহমান সংবাদ সংস্থা এএনআইকে বলেন, আমরা এখানে চুপচাপ বসে নেই এবং সিবিসি ডকুমেন্টারিতে নতুন প্রমাণ পাওয়ার পর আমরা তাকে দ্রুত দেশে পাঠানোর জন্য কানাডা সরকারের কাছে নতুন করে আবেদন জানাচ্ছি।
 


নূর চৌধুরী প্রায় ২৮ বছর আগে ১৯৯৬ সালে কানাডায় যান। দণ্ডিত খুনি হওয়া সত্ত্বেও তিনি সেখানে অবাধে বসবাস করছেন। বাংলাদেশ সরকার তাকে বহিষ্কারের জন্য বিভিন্ন উপায়ে চেষ্টা করছে।
 

খলিলুর রহমান বলেন, 'আমরা সব ধরনের চেষ্টা করছি এবং কানাডা সরকারের কাছে অনুরোধ করছি তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর জন্য। এই বিচার প্রক্রিয়াটি অত্যন্ত স্বচ্ছ ছিল। এমনকি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালও প্রমাণ করেছে যে, অভিযুক্তদের নির্দোষ করার জন্য সমস্ত সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।’
 

বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত কানাডাসহ অন্যান্য উন্নত দেশগুলোকে মানবাধিকারের নামে 'দ্বৈত মানদণ্ড' নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।
 

খলিলুর রহমান আরও বলেন, কানাডা আসলে আমাদের উদ্বেগকে উপলব্ধি করার চেষ্টা করছে না। কানাডা এবং অন্যান্য কিছু উন্নত দেশ তারা সবাই মানুষের ডায়েটের সুরক্ষা এবং প্রচার সম্পর্কে কথা বলে। এই নূর চৌধুরী মানবতাবিরোধী অপরাধ করে মানবাধিকার লংঘন করেছেন তবুও তারা তাকে রক্ষা করছে। তারা একজন হত্যাকারীর অধিকার রক্ষা করছে কিন্তু তারা ভুক্তভোগী এবং ভুক্তভোগীর পরিবারের প্রতি ন্যায়বিচার করছে না। এটি সত্যিই দ্বৈত মানদণ্ড।
 

এস এইচ এম বি নূর চৌধুরী ১৯৫০ সালে সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবার নাম এম এ নূর।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/ নাজাত /এসডি-৬২৩