করোনাকালীন সময় থেকে বন্ধ হয়ে যাওয়া জোবাইক সেবা আবারও আসছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে; আগামী জানুয়ারি থেকে এ সুবিধা চালু করার আশ্বাস দিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ। 

সোমবার (২৭ নভেম্বর) বেলা ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক ছাত্রবাস শাহপারণ হলে ক্যাশলেস শপ উদ্বোধনকালে এ বিষয়ে কথা বলেন তিনি। 


উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকা জোবাইক সেবা পুনরায় চালু করার জন্য দায়িত্বরতদের সঙ্গে কথা হচ্ছে। জানুয়ারির দিকে এ সেবা ক্যাম্পাসে চালু হতে পারে।

কক্সবাজার, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় এবং মিরপুর ডিওএইচএস এরপর ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে দেশের প্রথম বাইসাইকেল শেয়ারিং সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান জোবাইক সেবা চালু হয় শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়েও। তবে ২০২০ সালের করোকালীন সময় থেকে জোবাইকের দেখা মিলছে না ক্যাম্পাসে। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আলোচনা-সমালোচনা হলেও করোনা পরবর্তী সময়ে এটি চালু করার উদ্যোগ তেমন দেখা যায়নি। তবে পুনরায় চালুর কথা এবার কর্তৃপক্ষ থেকে আসল।  

জোবাইক সম্পর্কে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী ইফরাতুল হাসান রাহিম বলেন, ‘জোবাইক সবসময় শিক্ষার্থীদের একটি আগ্রহের জায়গা। অন-ক্যাম্পাসে সুবিধা দেওয়ায় জোবাইকের ভূমিকা রয়েছে। তবে জোবাইক পরিচালনায় দায়িত্বরতদের ব্যবস্থাপনার দিকে ভালো নজর দিতে হবে।’

সঠিক ব্যবস্থাপানার সহিত পুনরায় চালু হলে এটি শিক্ষার্থীদের জন্য সুফল বয়ে আনবে বলে এই শিক্ষার্থী মনে করেন। 

জোবাইকের অ্যাপসভিত্তিক বাইসাইকেল শেয়ারিং সেবার নানান সমস্যায় ভোগান্তির কথা জানিয়েছিলেন শিক্ষার্থীরা।  সাইকেলের লক-আনলক, নির্দিষ্ট পরিমাণ থেকে অধিক ভাড়া চার্জ, নির্দিষ্ট স্পটে সাইকেল না থাকা, ব্যালেন্স রিচার্জে সমস্যা, প্রয়োজনে সেবা না পাওয়াসহ নানান সমস্যায় জর্জরিত থাকে জোবাইকের সার্ভিসটি। 

সেবা দেওয়ার প্রত্যয়ে বেশ জনপ্রিয়তা নিয়ে জোবাইকের যাত্রা শুরু হলেও সেবা প্রদানের মাধ্যমে সেই আস্থা অর্জন করতে ব্যর্থতার কথাও শুনা যায়।

 
 
সিলেটভিউ২৪ডটকম/ নোমান