মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে শারদীয় পূর্ণিমা তিথিতে মণিপুরী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শ্রীকৃষ্ণের মহারাসলীলাকে কেন্দ্র করে চলে নানা আয়োজন সোমবার (২৭ নভেম্বর) উপজেলার মাধবপুরের শিববাজার জোড়া মণ্ডপে ও আদমপুরের তেতইগাও এ উৎসবের আয়োজনে শুরু হয়েছে রাস উৎসব।
 

জানা যায়, মণিপুরি মহারাসলীলা সেবা সংঘের আয়োজনে বিষ্ণুপ্রিয়া মণিপুরী এবার মাধবপুরের শিববাজার জোড়া মণ্ডপে ১৮১ তম রাসলীলা ও আদমপুরে মণিপুরি মৈতৈ সম্প্রদায় আয়োজনে ৪১তম রাস উৎসব হবে।
 


সরেজমিনে দেখা যায়, সোমবার দুপুরে রাখাল নৃত্যের মধ্যে দিয়ে শুরু হয়েছে রাস উৎসব। মহারাসলীলা উপলক্ষে উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের শিববাজার জোড়া মণ্ডপ মহারাসলীলা দেখতে সারা দেশ থেকে আগত দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখর মণিপুরী পাড়াগুলো। তবে হরতাল অবরোধ লোকসমাগম কিছুটা কম হয়েছে। রংবেরঙের পোশাক আর বাদ্যযন্ত্রের আওয়াজে উৎসবের জানান দিচ্ছে সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে। রাস উৎসব উপলক্ষে মুণিপুরী তাতঁবস্ত্র পদর্শনী ও মেলা বসেছে। এ ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে উৎসব পালন করতে কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।
 

রাস উৎসবে আয়োজকেরা জানান, মহা-রাসলীলা গোষ্ঠলীলা বা রাখালনৃত্য দিয়ে দুপুরে শুরু হয়। এটি গোধূলি পর্যন্ত এই রাখালনৃত্য চলে। গোষ্ঠলীলায় রাখাল সাজে কৃষ্ণের বালকবেলাকে উপস্থাপন করা হয়। রাত ১১টা শুরু হয় মহারাসলীলার নৃত্য বা শ্রী শ্রী কৃষ্ণের মহা-রাসলীলানুসরণ। এই রাসনৃত্য ভোর পর্যন্ত চলবে। এই রাসনৃত্যে গোপিনীদের সঙ্গে কৃষ্ণের মধুরলীলাই কথা, গানে ও সুরে ফুটিয়ে তুলবেন শিল্পীরা।

মাধবপুর ইউনিয়নের শিববাজার জোড়া মণ্ডপে মাধবপুর মণিপুরী মহারাসলীলা সেবা সংঘের আয়োজনে সন্ধ্যায় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। আলোচনা সভা অনুষ্ঠানে প্রধন অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সিলেট বিভাগীয় কমিশনার আবু আহমদ সিদ্দিকী।
 

মহারাসলীলা সেবা সংঘের সাধারণ সম্পাদক শ্যাম সিংহ বলেন, রাস উৎসব শুধু মুণিপুরীদের জন্য নয়। রাস দেখতে সারাদেশ থেকে হাজার হাজার দর্শনার্তী আসেন। এই উৎসবকে ঘিরে মুণিপুরী প্রতিটা পরিবারে একমাস থেকে প্রস্তুতি গ্রহণ করে।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/জয়নাল/এসডি-৬৭৭