দখলদার ইসরায়েলের সঙ্গে গতকাল বুধবার (২৯ নভেম্বর) রাতে নতুন করে আরও একদিনের যুদ্ধবিরতিতে পৌঁছায় ফিলিস্তিনি সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস। যদিও ধারণা করা হচ্ছিল, যুদ্ধবিরতির মেয়াদ আরও বেশি হবে।
 

বিরতির মেয়াদ মাত্র একদিন বৃদ্ধি করায় এখন শঙ্কার মধ্যে রয়েছেন গাজাবাসী। তারা আশঙ্কা করছেন যে কোনো সময় আবারও ইসরায়েলিদের নির্বিচার বোমা হামলা শুরু হতে পারে।
 


কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরা আজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গাজার দক্ষিণাঞ্চলের খান ইউনিসের বাসিন্দারা বেশ উদ্বিগ্ন সঙ্গে তারা হতাশও। কারণ তারা ভেবেছিলেন, যুদ্ধবিরতির মেয়াদ আরও বাড়বে। কিন্তু এটির সময় মাত্র একদিন বৃদ্ধি হওয়ায় তাদের মধ্যে শঙ্কা জেঁকে বসেছে। তারা আশঙ্কা করছেন, বড় কোনো কিছু হচ্ছে।
 

তারা শঙ্কা প্রকাশ করছেন, যে কোনো সময় ইসরায়েলের বিমান হামলা শুর হবে। কারণ গতকাল খান ইউনিস উপকূলে ইসরায়েলি গানবোট গুলি ছুড়েছে। আজ সেখানে যুদ্ধবিমান ও ড্রোন উড়তে দেখা গেছে।
 

বিরতির মধ্যেও যুদ্ধবিমান ও ড্রোন উড়তে দেখে— সাধারণ মানুষ ধারণা করছেন, কিছু একটা হচ্ছে।

তবে একই সময় বাস্তুচ্যুত মানুষ উত্তরাঞ্চলে তাদের ঘর-বাড়িতে ফেরার চিন্তা-ভাবনাও করছেন। তবে তাদের মনে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে— ‘কোনো যুদ্ধবিরতি কি আছে? আমরা কি উত্তর দিকে যেতে পারব? আমরা কি বাড়িতে ফিরতে পারব? সেখানে আমাদের পরিবারের সদস্যরা রয়েছেন যারা ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকা পড়ে আছেন।’


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-৭৭৭


সূত্র : ঢাকাপোষ্ট