আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সিলেট-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী বিশ্বনাথ পৌরসভার মেয়র মুহিবুর রহমান বলেছেন, “আমি নির্বাচনে বিজয়ী হলে আমার প্রধান কাজ হচ্ছে এদেশের গরীব-দুঃখী মানুষ যারা আছে তাদরে সামন্য হলেও কিছুটা শান্তার বানী শুনানো। আর সেই শান্তার বানী হচ্ছে গ্রামে গঞ্জে যেভাবে গরীব-দুঃখীরা নির্যাতিত নিপীরিত তাদের বিচারের কোনা জায়গা নাই। প্রশাসনের দারস্থ তারা কোনো দিনও  হতে পারে না। এবং গ্রামের যে বিচারকও আছেন তাদের কাছে যেতে হলেও আজকাল ৫’শ ১ হাজার লাগে। আর ঐই গরীবরা ১’শ টাকাও দিতে পারে না। আমি মনে করি  তাৎক্ষনিক ভাবে  এই গরীবদের  সমস্যা সমাধান করে দিতে হবে। তাহলে তাদের আর হানাহানি-মারামারি হবে না- রক্তাত্ত হবে। এবং ভিটামাঠি বিক্রি করে থানা আর কোর্টের দারস্থ হতে হবে না। আমি মনে করি এটা প্রধান সমস্যা। এটা দূর করতে হবে এবং থানার দালাল বাটপারদের হাটিয়ে দিতে হবে।”

বৃহস্পতিবার দুপরে ওসমানীনগর উপজেলার গোয়ালাবাজারস্থ একটি অভিজাত রেষ্টেুরেন্টে প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।


তিনি আরোও বলেন, “আগামী নির্বাচন আমি আশাকরি ভালোই হবে। নির্বাচনের লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিই এখানে আছে। প্রশাসন তো বর্তমানে নির্বাচন কমিশনের অধীনেই আছে। ঢাকায় যেহতু প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেছেন নির্বাচন ফেয়ার হবে তাই আমরা আশা করতে পারি আগামি নির্বাচন ফেয়ার হবে। আমরা নির্বাচনের মাঠ তখন পর্যবেক্ষণ করব যখন যাচাই-বাচাই শেষ হয়ে যাবে আমরা প্রচার প্রচারণা শুরু করে দিবো তখন আমরা দেখব নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের ভূমিকা কি?”

এসময় কর্মরত সাংবাদিক ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন- সমাজ সেবক এম এ হক, আওয়ামিলীগ নেতা এখলাছুর রহমান, আব্দুর রউফ, শাহাব উদ্দিন ও আক্তার  হেসেন সহ আরোও অনেক।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/রনিক/এসডি-৮০৭