ক্রিকেটে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের প্রচলন শুরু হয় মূলত এই শতকের শুরুর দিকে। তবে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) দিয়ে এই ফরম্যাট দ্রুত জনপ্রিয়তা পেয়েছে। ২০১২ সালে যার ঢেউ লাগে বাংলাদেশের ক্রিকেটে। সে বছরের ফেব্রুয়ারীতে ৬ দল নিয়ে শুরু হয় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)।
 

ফ্র্যঞ্চাইজি ক্রিকেটে সাধারণত লম্বা সময়ের জন্য দলগুলোর মালিকানা দেওয়া হয়। আইপিএল, পিএসএল কিংবা বিগ ব্যাশ সব জায়গায়ই এমনটাই চোখে পড়বে। ব্যাতিক্রম কেবল বিপিএলে। এখানে ম্যাজিক্যাল চেয়ারের মতো পরিবর্তন হয় মালিকানা। ফলে দলগুলোর নামেও পরিবর্তন আসে।
 


বিপিএলে নাম বদলের এই লড়াইয়ে যৌথভাবে শীর্ষে আছে ঢাকা ও সিলেট। এই দুই বিভাগ রীতিমতো নাম বদলের এল ক্লাসিকোতে নেমেছে। এবারের আসরসহ মোট দশটি আসরে এই দুই দল খেলেছে সমান ৬টি করে ভিন্ন ভিন্ন নামে।
 

ঢাকা শুরু করেছিল ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স দিয়ে। এই নামে দুইবার চ্যাম্পিয়ন হয় দলটি। কিন্তু নিষেধাজ্ঞায় পড়ে বিদায় নেয় তারা। ফলে ২০১৫ থেকে ঢাকা ডায়নামাইটস নামে আসে নতুন দল। তারা খেলেছে ২০১৯ সাল পর্যন্ত। এরপর ঢাকা প্লাটুন, মিনিস্টার ঢাকা ডমিনেটর্স ও মিনিস্টার ঢাকা। আর এবার খেলবে দুর্দান্ত ঢাকা।
 

নাম বদলের এই লডাইয়ে ঢাকার সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী সিলেট। এবারের আগে যে ৯টি আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে সেখানে ৮ বার খেলেছে ভিন্ন ভিন্ন ৬ মালিকানায়। তারা আসর শুরু করেছিল সিলেট রয়্যালস দিয়ে। দুই বছর খেলেছে এই নামে। ২০১৫ তে খেলেছে সিলেট সুপার স্টার্স নামে। ২০১৬ আর ২০১৭ আসরে খেলেছে সিলেট সিক্সার্স নামে। এরপর সিলেট থান্ডার্স ও সিলেট সানরাইজার্স নামেও খেলেছে তারা। আর বর্তমানে খেলছে সিলেট স্ট্রাইকার্স নামে।
 

নাম বদলের দিক থেকে এই দুই দলের পরই আছে চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও রাজশাহী। এই তিন দলই নাম পরিবর্তন করেছেহ তিনবার করে। আর বাকি দুই দল রংপুর ও বরিশাল একবার করে তাদের নাম পরিবর্তন করেছে।

 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-২৭৩