দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েও গতি হয়নি তিনবারের সংসদ সদস্য ও কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের। স্বতন্ত্র প্রার্থীর কাছে পরাজিত হয়েছেন তিনি। 


পরাজয়ের পর অন্য প্রার্থীরা মুখ খুললেও চুপ ছিলেন মমতাজ। তবে নিজের নেতাকর্মীর গায়ে হাত তোলায় ধৈর্যের বাঁধ ভেঙেছে তার। নির্যাতিতদের পাশে দাঁড়িয়ে গর্জে উঠেছেন তিনি। দিয়েছেন হুঁশিয়ারি ।



নির্বাচনে হারার পর মমতাজের ৫০ এর বেশি নেতা-কর্মীর ওপর হামলা হয়। তাঁরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। হেরেও তাদের পাশে থাকার কথা বলেন মমতাজ। এ সময় মমতাজ বেগম বলেন, ‘আমি সারা পৃথিবী চষে বেড়ানো মহিলা, আর দশটা মেয়ের মতো আমি না। আমার এই জনগণের জন্য জেল খাটতে রাজি আছি। আমার যদি মোকাবিলা করতে হয় রাজপথে দাঁড়ায়া, আপনাদের নিয়ে সবকিছু মোকাবিলা করব। জেল-জুলুল অত্যাচার কোনো কিছু আমাকে দাবায়ে রাখতে পারবে না।’


তিনি আরও বলেন, ‘আমি কিন্তু ডরে ঘরের কোণে বসে থাকা মহিলা না। আমি আপনাদের সঙ্গে আছি। এর পর থেকে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করব। হান্নান ভাই, মেয়র সবাইকে বলব, যেখানে যে ঘটনা ঘটবে, সেখানে সবাই মিলে প্রতিবাদ করব।’ 


মানিকগঞ্জ ২ আসন থেকে নৌকা প্রতীকে লড়েছিলেন মমতাজ। কিন্তু তিনি ধরাশায়ী হন ট্রাক প্রতীকে লড়া স্বতন্ত্র প্রার্থী দেওয়ান জাহিদ আহমেদের (টুলু) কাছে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক