ফাইল ছবি

নতুন বছরের শুরুতেই সিলেটে চালের বাজারে ঊর্ধ্বমুখী। সপ্তাহ ব্যবধানে সিলেটের খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি চালের দাম বেড়েছে ৪-৫ টাকা। কুচরা বাজারের তুলনায় পাইকারি বাজারেও বেড়েছে দাম। এতে বিপাকে পড়েছেন ক্রেতারা। ভোগান্তিতে পড়েছেন খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের লোকজন।
 

ব্যবসায়ীদের মতে, মজুতদাররা দাম বেশি চাওয়ায় তাদের বেশিদামে চাল কিনতে হচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। তবে কি কারনে দাম বাড়ছে তা জানেন না তারা।
 


সিলেটের বৃহৎ চালের আড়ৎ কালিঘাট বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পর্যাপ্ত মজুত ও সরবরাহ রয়েছে চালের। পাইকারি বাজারে প্রতিবস্তা বেড়েছে ১০০ থেকে ১৫০ টাকা। আর খুচরা বাজারে প্রকারভেদে সব ধরনের চাল কেজিতে ৪ থেকে ৫ টাকা বেড়েছে।
 

দক্ষিণ সুরমার পাইকারি চাল ব্যবসায়ী জয়নাল আবেদন সিলেটভিউ-কে জানান, গত ৫ দিনে প্রতি জাতের চালের কেজিতে ৪-৫ টাকা বেড়েছে। আড়তদারদের কাছ থেকে তারা বেশি দামে কিনছেন বলে বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে।
 

সিলেট নগরীর সুবিদবাজার এলাকার বাসিন্দা শিক্ষক আব্দুল মুমিন বলেন, গত সপ্তাহে তিনি যে চাল ৬০ টাকা কেজিতে কিনেছেন সে চাল আজ ৬৫ টাকা করে কিনতে হচ্ছে।
 

তিনি জানান, সীমিত আয়ে আমাদের চলতে হয়। হঠাৎ করে চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় কিছুটা হলেও সমস্যায় পড়তে হয়েছে।
 

চালের দাম বৃদ্ধিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নগরীর জালালাবাদ এলাকার বেসরকারি চাকরিজীবী আইনুল হোসেনও।
 

সংশ্লিষ্টরা জানান, গত এক সপ্তাহের মধ্যে চালের দাম বেড়েছে ৫ থেকে ৬ টাকা।  আগে প্রতিকেজি মিনিকেট ৬০ টাকায় বিক্রি হতো এখন ৬৫ টাকায়, ২৯ জাতের চাল আগে ৫২ টাকায় বিক্রি হতো এখন ৫৫ টাকায়।
 

এদিকে বাজার নিয়ন্ত্রণে মনিটরিং জোরদারের পাশাপাশি চালের আমদানি শুল্ক কমানোর পরামর্শ দিচ্ছেন অনেকে।

 


সিলেটভিউ২৪ডটকম / মাহি /এসডি-৩১২