এসএসসি, এইচএসএসির পর অনেকেই বিদেশে পড়তে যেতে চান। কেউবা দেশে স্নাতক শেষ করে বিদেশে গিয়ে স্নাতকোত্তর করতে চান। সেক্ষেত্রে কোন দেশে পড়তে যাবেন তা ঠিক করে উঠতে পারেন না। জানুন দশটি দেশ সম্পর্কে যেসব দেশে কম খরচে পড়তে যেতে পারেন।

 


আমেরিকা


বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য আমেরিকা বিখ্যাত। বিভিন্ন ধরনের অ্যাকাডেমিক প্রোগ্রাম চালু থাকে বছরভর। এটাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্বের উদ্ভাবন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলেছে। ছাত্রছাত্রীরাও আমেরিকায় পড়তে যাওয়ার জন্য মুখিয়ে থাকেন।


ইংল্যান্ড

অ্যাকাডেমিক ঐতিহ্যের সুনাম রয়েছে ইংল্যান্ডের। এ দেশেই অক্সফোর্ড, কেমব্রিজের মতো প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠেছে। প্রতি বছর সারা বিশ্ব থেকে কয়েক লাখ পড়ুয়া এখানে আসেন।


কানাডা

কানাডা তার পরিবেশের জন্য বিখ্যাত। শুধু প্রাকৃতিক পরিবেশ নয়, অনুকূল শিক্ষার পরিবেশ রয়েছে এখানে। বিষয় বৈচিত্রেও অতুলনীয়। আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের জন্য কানাডা হয়ে উঠেছে আদর্শ গন্তব্য।


অস্ট্রেলিয়া

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর অস্ট্রেলিয়া। এখানকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোও বিশ্বমানের। এর সঙ্গে যোগ হয়েছে ব্যতিক্রমী জীবনযাত্রার অভিজ্ঞতা। সবমিলিয়ে পড়ুয়াদের কাছে অস্ট্রেলিয়া হয়ে উঠেছে আকর্ষণীয় গন্তব্য।

 

জার্মানি

জার্মানির ইঞ্জিনিয়ারিং বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর জগৎজোড়া সুনাম। সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে টিউশন ফি নেওয়া হয় না। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের খরচ খুব বেশি নয়। তাই অনেক পড়ুয়াই উচ্চমানের সাশ্রয়ী শিক্ষার জন্য জার্মানিকে বেছে নেন।


ফ্রান্স

ফ্রান্স মানে সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। গান, ছবি আঁকা, থিয়েটার, সাহিত্যের মুক্ত অঙ্গন। এখানকার রান্নাও জিভে লেগে থাকে। সমৃদ্ধ শিক্ষার পাশাপাশি এখানকার ঐতিহ্য আন্তর্জাতিক শিক্ষার্থীদের প্রধান আকর্ষণ।


জাপান

জাপান অত্যাধুনিক প্রযুক্তি এবং গবেষণার জন্য বিখ্যাত। হেন কোনও যন্ত্র নেই যা জাপানিরা বানায়নি। বহু প্রাচীন বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। মানসম্পন্ন শিক্ষার জন্য জাপানের সুনামও কম নয়।

 

নেদারল্যান্ড

প্রগতিশীল শিক্ষা ব্যবস্থার জন্য নেদারল্যান্ড বিখ্যাত। পড়াশোনা হয় মূলত ইংরেজিতে। একাধিক অ্যাকাডেমিক প্রোগ্রাম চালু থাকে বছরভর।


সুইডেন

সুইডেনে উদ্ভাবনী শক্তির উপর জোর দেওয়া হয়। জীবনযাত্রার মানও ভালো বিশ্বমানের বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে।


নিউজিল্যান্ড

বিদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য নিউজিল্যান্ডের মতো নিরাপদ দেশ আর দুটি নেই। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যও অতুলনীয়। একাধিক আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এ দেশের মানুষও অতিথিপরায়ণ।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/মিআচৌ