পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদ নির্বাচনে ১৭০ আসনে জয়ের দাবি করেছেন কারাগারে বন্দি দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও তেহরিক-ই-ইনসাফের প্রধান ইমরান খান। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) ব্যবহার করে উপস্থাপন করা বিজয়ী ভাষণে ইমরান খান এই দাবি করেন।
 

জণগণের উদ্দেশ্যে ইমরান খান বলেন, ভোট প্রয়োগের মাধ্যমে আপনারা প্রকৃত গণতন্ত্রের ভিত্তি স্থাপন করেছেন। এজন্য ইমরান খান সবাইকে ধন্যবাদ জানান।


তিনি বলেন, আমার পরিপূর্ণ বিশ্বাস ছিল আপনারা সবাই ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন। ব্যাপক ভোটার উপস্থিতি সবাইকে হবাক করেছে। আপনাদের ভোটের কারণে ষড়যন্ত্র নস্যাৎ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন ইমরান। এখনো বেশ কিছু আসনের ফলাফল বাকি থাকতেই বিজয়ী ভাষণ দিলেন এই পিটিআই নেতা।
 

সাবেক এই ক্রিকেট তারকা দাবি করে বলেন, কারচুপি শুরু হওয়ার আগে আমরা ১৫০ আসনে জয়ী হতে যাচ্ছিলাম এবং সবশেষ ফরম-৪৫ এর তথ্য অনুযায়ী আমরা ১৭০টির বেশি আসনে জয় পেয়েছি।
 

ইমরান খান বলেন, পাকিস্তানের মানুষ ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। আমি সর্বশক্তিমানকে ধন্যবাদ জানাই যে তিনি আমাদের একটি জাতিতে পরিণত করেছেন। আমাদের এখন উপরের দিকে উড়তে কেউ আটকাতে পারবে না। এই মুহূর্তটি উদযাপন ও প্রার্থনা করুন।
 

যদিও পাকিস্তানের গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ঘোষিত ফলাফলে দেখা গেছে, ইমান খানের সমর্থিত প্রার্থীরা ৯৯ আসনে জয় পেয়েছেন।

অন্যদিকে, নওয়াজের শরিফের পাকিস্তান মুসলীম লীগ (পিএমএলএন) জয় পেয়েছে ৭১ আসনে। তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে বিলওয়াল ভুট্টোর নেতৃত্বাধীন পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) ৫৩ ও এমকিউএম ১৭ আসনে জয়ী হয়েছে। এ ছাড়া অন্যান্য দল পেয়েছে ১০টি আসন।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-৮২৫


সূত্র : জাগোনিউজ