শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটাল ও ডা. রেলা ইন্সটিটিউট এন্ড মেডিকেল সেন্টারের মধ্যে লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশন বিষয়ে এমওইউ স্বাক্ষরিত হয়েছে।
 

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) চেন্নাইয়ে ‘বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটালের’ সাথে চেন্নাইয়ের ‘ডা. রেলা ইন্সটিটিউট এন্ড মেডিকেল সেন্টারের’ একটি এমওইউ স্বাক্ষরিত হয়।
 


ডা. রেলা ইন্সটিটিউট এন্ড মেডিকেল সেন্টারের পক্ষে এতে স্বাক্ষর করেন হাসপাতালটির চেয়ারম্যান ও এমডি ডা. মোহামেদ রেলা আর শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটালের পক্ষে সিইও মোহাম্মদ তাহফিক বিন ইসমাইল। শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটালে একটি স্বনির্ভর ও সাসটেইনেবল লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশন প্রোগ্রাম আরম্ভ করাই এই সহযোগিতার লক্ষ্য। 

 

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- গগনদ্বীপ সিং বেদী, এডিশনাল ক্যাবিনেট সেক্রেটারি এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান সেক্রেটারি, তামিলনাড়ু রাজ্য সরকার।
 

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চেন্নাইয়ে নিযুক্ত বাংলাদেশের উপ হাইকমিশনার শেলি সালেহিন, মালয়শিয়ার কনসাল জেনারেল সারাভানা কুমার কুমারাভাসাগাম, ডা. রেলা ইন্সটিটিউট এন্ড মেডিকেল সেন্টারের সিইও ডা. ইলানকুমারান কালিয়ামুর্তি ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্টারভেনশনাল হেপাটোলজি ডিভিশনের প্রধান অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল।
 

প্রধান অতিথি বাংলাদেশকে ভারতের পরীক্ষিত বন্ধু হিসেবে আখ্যায়িত করে মন্তব্য করেন যে, প্রতিবেশী এই দুই দেশের সম্পর্ক এখন অনন্য উচ্চতায় পৌছেছে। তিনি বাংলাদেশে লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশন প্রোগ্রাম শুরু করায় বাংলাদেশের পাশে দাড়ানোয় ডা. রেলা ইন্সটিটিউট এন্ড মেডিকেল সেন্টারের ভুয়সী প্রশংসা করেন।
 

অধ্যাপক ডা. রেলা তার বক্তব্যে ইতিপুর্বে আয়ারল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, ওমান, সুদান ও তামিলনাড়ুর একাধিক সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে লিভার ট্রান্সপ্লান্ট প্রোগ্রাম সফলভাবে শুরু করায় তার ও তার প্রতিস্ঠানের ভুমিকার কথা উল্লেখ করে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন যে, অচিরেই বাংলাদেশেও শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটালে তারা একটি সফল ও স্বয়ংসম্পুর্ন প্রোগ্রাম আরম্ভ করতে পারবেন। তিনি ডা. রেলা ইন্সটিটিউট এন্ড মেডিকেল সেন্টারের উপর আস্থা রাখায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন।
 

শেলি সালেহিন তার বক্তব্যে দক্ষিন ভারত, বিশেষ করে  তামিলনাড়ুর সাথে বাংলাদেশের স্বাস্থ্য, উচ্চ শিক্ষা ও আইটিখাতে সহযোগিতার বিপুল সম্বাবনার কথা তুলে ধরে আশা প্রকাশ করেন যে দুই দেশের এই দুই সেরা প্রতিস্ঠানের সহযোগিতা বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতের অগ্রগতিতে গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রাখবে।

অধ্যাপক ডা. স্বপ্নীল মুক্তিযুদ্ধে ভারতীয় অবদান কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরন করে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, ডা. রেলা ইন্সটিটিউটের সহযোগিতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের হাত ধরে সামনে শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটালে আরেকটি মাইলফলক অর্জনের পথে এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ।
 

উল্লেখ্য এরই মধ্যে ডা. রেলা ইন্সটিটিউটে বাংলাদেশের লিভার ট্রান্সপ্লান্ট সার্জন ও ট্রান্সপ্লান্ট টিমের অন্যান্য সদস্যদের এডভান্সড প্রশিক্ষন চলমান রয়েছে আর শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে স্পেশালাইজড হসপিটালে নিয়মিত অনুস্ঠিত হচ্ছে যৌথ ক্লাবড ক্লিনিক। আশা করা যাচ্ছে ২০২৫ সাল থেকে এই হাসপাতালে নিয়মিত লিভার ট্রান্সপ্লান্টেশন করা সম্ভব হবে।


সিলেটভিউ২৪ডটকম/প্রেবি/এসডি-৮২৮