সিলেটের বিয়ানীবাজারের রাস্তার পাশে এক বাস হেলপারের নিথর দেহ পাওয়া গেছে। আব্দুল আহাদ (৩৫) নামের ঐ হেলপার জকিগঞ্জ উপজেলার বাসিন্দা বলে জানা গেছে।

 


সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বিয়ানীবাজার উপজেলার দুবাগ ইউনিয়নের মেওয়া স্কুলের সামন থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে।

 

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, স্ত্রী, দুই সন্তানের সংসার আহাদের। সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কে বাসের হেলপার হিসেবে কাজ করতেন তিনি। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিলেটগামী বিরতিহীন বাসে করে মেওয়া এলাকায় গেলে অসুস্থ গাড়ি থেকে নেমে যান তিনি। এর কিছু সময় পরেই তার মরদেহ মিলে রাস্তার পাশে। তাঁর শরীরের বুকে এবং পায়ে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

 

এদিকে পরিবারের অভিযোগ করছে এটি কোন স্বাভাবিক মৃত্যু নয়। হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন আহাদ। 

 

বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দেবদুলাল ধর বলেন, আমরা লাশের দুর্ঘটনার কারণ এবং কী ভাবে দুর্ঘটনা ঘটেছে নির্দিষ্ট তথ্যের মাধ্যমে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। নিহত লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন করে ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম / হাফিজুর / মাহি