বাংলাদেশ ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জন্য মে মাসের স্মৃতি মোটেও সুখের নয়! ২০০৯ সালের ২৫ মে সুন্দরবন তছনছ করেছিল ঘূর্ণিঝড় আয়লা। ২০২০ সালের ২০ মে আছড়ে পড়েছিল আম্পান। এবার সেই মে মাসের শেষে ফের প্রাকৃতিক দুর্যোগের আশঙ্কা রয়েছে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গে। বঙ্গোপসাগরে তৈরি হচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’। যা মে মাসের শেষের দিকে পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশের উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে।
 

ভারতীয় আবহাওয়া দপ্তরের আপডেট বলছে, চলতি মাসে বঙ্গোপসাগরে অন্তত দুটি নিম্নচাপ তৈরি হওয়ার শঙ্কা রয়েছে, যা মাসের দ্বিতীয়ার্ধে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।
 


আবহাওয়াবিদরা বলছেন, ২০ মে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে তৈরি হতে পারে ঘূর্ণাঝড়টি। এর পর উত্তর দিকে এগোবে সেটি। ধীরে ধীরে শক্তি বাড়াবে। ২৪ মে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে সেটি। ২৫ মে সন্ধ্যার পর সেটি বাংলাদেশ বা পশ্চিমবঙ্গের ভূভাগে প্রবেশ করতে পারে। সেই ঝড়ের গতিবেগ কতটা থাকবে, বা কতটা ক্ষয়ক্ষতি হবে, তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে কমপক্ষে ১০০ থেকে ১১০ কিলোমিটার বেগে আছড়ে পড়তে পারে এই ঘূর্ণিঝড়।
 

বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’-এর নামকরণ করেছে ওমান। আরবিতে যার অর্থ বালি। অবশ্য এই নামে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় থেকে ১.৭ কিলোমিটার দূরে একটি শহরও রয়েছে।


 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-২০৮৩


সূত্র : ঢাকা টাইমস