জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও অভিনেত্রী জেফার রহমান। ভিন্ন ধারার গান ও ফ্যাশন স্টেটমেন্টের জন্য সব সময় নজর কেড়েছেন তিনি। বিভিন্ন সময় ভক্তরা তার গানের আলোচনা-সমালোচনা করে থাকেন।
 

দীর্ঘ বিরতির পর ইংরেজি গানে ফিরলেন জেফার। সম্প্রতি ‘ওকেব্রো রেকর্ডস’-এর ইউটিউব চ্যানেলে ‘স্পাইসি’ শিরোনামে গানটি প্রকাশ পেয়েছে। এরপরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বিভিন্ন পেজ ও ইউটিউব চ্যানেলে সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। যেখানে ভক্তদের মাঝে দেখা দিয়েছে তর্ক-বিতর্ক।
 


ইউটিউবে এ গানের কমেন্টে সজীব আহমেদ লিখেছেন, ‘একবার গায়ক বা গায়িকা হতে পারলেই ছাগলের মতো মে মে করতে পারলেই গান হয়ে যায়।’

মারুফ নামে আর একজন লিখেছেন, ‘কিসব করতেছে! তোমাদের লিরিক্স দরকার হলে যোগাযোগ কইরো আমার সাথে। আমার নিজের লেখা অনেক গান আছে। সেগুলো ফ্রিতে নিও দরকার হয়। ক্রেডিটও লাগবে না ভাই। তাও এসব কইরো না দয়া করে। বাংলার একটা সৌন্দর্য আছে, সম্মান আছে। অন্তত সেটা বজায় রেখে গান বানাও প্লিজ।’
 

এদিকে ফেসবুকে এ গানের লিরিক্স “সোনা বন্ধু তুই আমারে ভোথা দাও দিয়া কাইট্টা লা, পিরিতের খেতা দিয়া যাইত্তা ধইরা মাইরালা।” নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

ইভান আহমেদ রাসেল লিখেছেন, ‘গরম এর জ্বালায় বাচি না, ছেড়ি আইছে খেতা দিয়া জাইত্তা ধরতাম, বেয়াদব ।’
 

শাহিনা আক্তার কমেন্টে লিখেছেন, ‘মালাইকা আরোরার বাংলা ভার্সন। দুনিয়ায় গানের সুর কথার কি ঠাডা পরছে যে এই গান শুনতে হবে মানুষের। নাউজুবিল্লাহ।’
 

উল্লেখ্য, যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসে ‘স্পাইসি’ গানের দৃশ্যধারণ করা হয়েছে। গানটির প্রযোজক ফুয়াদ আল মুক্তাদীর। জেফার রহমান বাংলাদেশের প্রথম ইউটিউব বেইজড মিউজিশিয়ান। তরুণ প্রজন্মের কাছে বেশ পরিচিত মুখ তবে সেটা সংগীতশিল্পী হিসেবে। এর বাইরে তিনি নিজেই গান লিখেন, সুর করেন। এছাড়াও তার আর একটি পরিচয় তিনি একজন প্রযোজকও।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-২০৯৩


সূত্র : ঢাকাপোষ্ট