সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় চেয়ারম্যান পদের প্রার্থী মাওলানা বিলাল আহমদ ইমরানের এজেন্ট ফখর উদ্দিন নামের একজনকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে বিজয়ী প্রার্থী লোকমান উদ্দিন চৌধুরীর সমর্থকদের বিরুদ্ধে। আহত ফখর উদ্দিন সুলতানপুর ইউপির সহিদাবাদ গ্রামের মৃত ফয়জুল হকের ছেলে। গত রোববার রাতে কামালগঞ্জ বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ৩ জনকে আসামি করে থানায় লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। 


লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, সুলতানপুর ইউপির সহিদাবাদ গ্রামের মৃত ফয়জুল হকের ছেলে ফখর উদ্দিন (৪৬) গত ৫ জুন অনুষ্ঠিত হওয়া জকিগঞ্জ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে গণিপুর কামালগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের ভোটকেন্দ্রে উলামা জনতা ঐক্য পরিষদের প্রার্থী মাওলানা বিলাল আহমদ ইমরানের কাপ পিরিচ মার্কার এজেন্টে ছিলেন। ভোট চলাকালে জালভোট প্রয়োগের চেষ্ঠাকালে চেয়ারম্যান প্রার্থী লোকমান উদ্দিন চৌধুরীর সমর্থক সহিদাবাদ গ্রামের টিপু আহমদকে পুলিশ আটক করে। তখন মাওলানা বিলাল আহমদ ইমরানের এজেন্ট ফখর উদ্দিন চ্যালেঞ্জ করে টিপুকে আটক করিয়েছেন বলে দোষারূপ করে হুমকি দেন আটক টিপুর ভাই আলাউদ্দিন।


 

ওই ঘটনার সূত্রধরে রোববার রাতে ফখর উদ্দিনকে পিটিয়ে রক্তাক্ত জখম করেন সহিদাবাদ গ্রামের মৃত ইয়াছিন আলীর ছেলে আলাউদ্দিন (৩০), একই গ্রামের মৃত রেজান আলীর ছেলে আব্দুল মজিদ (৫০) এবং নোয়াগ্রামের মৃত ইলিয়াছ আলীর ছেলে সেলিম আহমদ (৫৫)। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সিলেট এমএজি ওসমানী হাসপাতালে পাঠান।


জকিগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাবেদ মাসুদ জানান, লিখিত অভিযোগ পেয়ে পুলিশ সরেজমিন তদন্ত করেছে। আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

 

সিলেটভিউ২৪ডটক / হাছিব / মাহি