পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে দুর্নীতি মুক্তকরণ বাংলাদেশ ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি নাসির উদ্দিন এডভোকেট, সিনিয়র সহ সভাপতি ইকবাল হোসেন চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জননেতা মকসুদ হোসেন এক বিবৃতিতে সড়কে চাঁদাবাজি ও অবৈধ গরুর হাট বন্ধের দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।
 

নেতৃবৃন্দ বলেন, “এমনিতে পবিত্র হজ্জকে কঠিন করে দেওয়া হয়েছে। মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে পশু কোরবানি দেওয়া ওয়াজিব। এ ওয়াজিব পালনে সামর্থ্যবানরা পশু ক্রয় করেন বিভিন্ন হাট থেকে পশু ক্রয়-বিক্রয়কে কেন্দ্র করে রাস্তাঘাটে আইনশৃঙ্খলা ব্যতীত কোন মাস্তান বাহিনী, পেটুয়া বাহিনী ও সরকারি দলের মদদপোস্ট কিশোর গ্যাং দ্বারা সড়কের চাঁদাবাজি রুখতে গুরুত্বপূর্ণ জনপদ গুলোতে অবৈধ পশুর হাট বন্ধ করুন। অন্যতায় দায়িত্বশীল সরকারি দলের হাই কমান্ডার নেতাগণ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এর জন্য দায়ী থাকবেন।  জনগণের দাবি কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে অবৈধ পশুর হাট চাঁদাবাজি, যে কোন পশুর গাড়ি আটকানো কোন অবস্থায় মেনে নেওয়া যাবে না এই কু-কর্মকান্ড বন্ধ করতে যা যা করা দরকার তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে করতে হবে।”
 


অপরদিকে এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, “বছর ঘুরে আবারও এসেছে ত্যাগের মহিমায় ভাস্বর মুসলমানদের সবচেয়ে বড় দুই ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা ও পবিত্র হজ্জ। প্রতি বছর লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান সৌদী আরবের পবিত্র মক্কা নগরীতে আরাফাত ময়দানে সমবেত হয়ে পবিত্র হজ্জ পালন করে থাকেন। প্রতি বছর দেশে হজ্জ যাত্রা নিয়ে নানা সমস্যা হয়। কখনো ফ্লাইট বিড়ম্বনা, কখনো হজ এজেন্সির প্রতারণার কারণে অনেকেই পুরো অর্থ পরিশোধ করেও হজ্জ পালন করতে পারেননি। তবে এবারের হজ্জ যাত্রা মোটামুটি নির্বিঘ্ন হয়েছে। এজন্য হজ্জ ব্যবস্থাপনার সাথে যুক্ত ব্যক্তিদের মোবারকবাদ।”
 

নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘এবারের ঈদ এসেছে ভিন্ন প্রেক্ষাপটে। আর্থিক এই দুর্দিনের সময় যারা পুরোপুরি ধর্মীয় বিধান মেনে চলে, হালাল উপার্জনের পাশাপাশি গণমানুষের জন্য সব সময় চিন্তা ও কাজ করে কোরবানী দিচ্ছেন সেই সমস্ত কোরবানীর বিনিময়ে মহান রাব্বুল আলামীন যেন আমাদের দেশে দুর্নীতি মুক্ত এক ঝাঁক নেতৃত্ব তৈরী করে দেন ও হক ইনসাফ প্রতিষ্ঠিত হোক নেতৃবৃন্দ এই কামনা করেন।’
 

নেতৃবৃন্দ ঈদ শুভেচ্ছা বার্তায় বলেন, ‘গ্রহনযোগ্য, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঋণখেলাফিদের ঋণ শিডিউল বাতিলক্রমে এদের অংশগ্রহণ পুরোপুরি নিষিদ্ধ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের মেয়াদ ২ বছর, নির্বাচিত সরকারের মেয়াদ ৬ বছরের বিধান সংবিদানে অন্তর্ভুক্ত করার লক্ষ্যে অত্র সংগঠনের ঘোষিত এই দাবীর সর্মথনে গণমত গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশবাসীর প্রতি আকুল আহবান জানান। পাশাপাশি দেশের বড় বড় দুর্নীতি ও দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে গণজাগরণ এবং এদেরকে নির্বাচনে বর্জন সহ দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের অন্যতম অঙ্গীকার হোক এবারের পবিত্র ঈদুল আজহার অন্যতম শপথ। সকলকে ঈদ মোবারক।’


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/প্রেবি/এসডি-৫২৯৬