ফিনল্যান্ড জুড়ে মুসলমানরা ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য আর উৎসাহের মধ্য দিয়ে রবিবার উদযাপন করছে বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আজহা।

সবাই দিনটির প্রতীক্ষায় ছিলেন এতদিন। অবশেষে প্রতীক্ষার অবসান হল ১৬ জুন রবিবার। ফিনল্যান্ডের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা উদযাপন করলেন ঈদুল আজহা।


জলমালে রৌদ্রোজ্জ্বল গ্রীষ্মের আবহাওয়ায় ফিনল্যান্ডে প্রবাসী বাংলাদেশি ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা সমবেত হয় ঈদের জামাতে।

হেলসিঙ্কির ভান্তা স্পোর্টস সেন্টারের মিলনায়তনে ইসলামী রীতি অনুযায়ী দুটি বাংলাদেশি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম জামাত হয় সোয়া ৮টায় এবং দ্বিতীয়টি সোয়া ৯টায়।

এতে ইমামতি করেন বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় মসজিদের খতিব মাওলানা মো. বশির আহমেদ।

ঈদের জামাত শেষে দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। ফিনল্যান্ডের সর্বস্তরের প্রবাসী বাংলাদেশিরা জামাত দুটিতে অংশ নেন।

জামাত দুটিতে অন্যান্যদের মধ্যে অংশ নেন, লিমন চৌধুরী, নাজমুল হুদা, কামরুল আলম কামাল, নাসির খান, কামরুল হাসান জনি, মো. জাহাঙ্গীর আলম, এন জামান ভূইয়া, মাহবুবুল আলম, মহিউদ্দিন আহমেদ মানিক, জহিরুল আলম নজরুল, ফয়েজ আহমেদ ঢালী, জামান সরকার, সালেক আহমেদ সালেহ, ইমন আহমেদ, আকরাম হোসেন, মহি খান, আলাউদ্দিন মোহাম্মদ, শামীম বেপারী, আতাউর রহমান খান, মাসুদ আবদুল্লাহ, স্বপন বংগবাসী, আঃ লতিফ, লিটন দেওয়ান, মহসিন আলম, হালিম, তানভীর রশিদ, আবুল কালাম আজাদ, মেহেদী হাসান লিও, হামিদুল ইসলাম, দবির হোসেন, মোঃ রকিবুল ইসলাম রুবেল, সাব্বির আহমেদ লস্কর, রাব্বি আহমেদ, জায়ান, আরিয়ান, হোসাইন রিফাত আরমান, সাজিদ খান জনি, রাফাত ঢালী প্রমুখ।

ফিনল্যান্ডে বরাবরের মত এবারেও বাঙালিদের ঈদ উৎসবে ছিল বিভিন্ন ধরনের দেশী-বিদেশি খাবার, একে অপরের বাড়িতে নেমন্তন্ন খাওয়া, মাতৃভূমি বাংলাদেশে টেলিফোন করে পরিবারের ও আত্নীয়স্বজনের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও খোঁজখবর নেওয়া ইত্যাদি । ঈদের এই আনন্দে একে অপরের বাড়িতে নেমন্তন্ন খাওয়ার রেওয়াজ একাধারে ৩-৪ দিন চলতে থাকে।

 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/জামান/এসডি-৫৩২৭