সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট এমরান আহমদ চৌধুরী বলেছেন, “মেধাবী চিকিৎসক ডা. জোবায়দা রহমান একদিকে যেমন জিয়াউর রহমান ও খালেদা জিয়ার পুত্রবধূ অন্যদিকে তিনিও দেশের একটি ঐতিহ্যবাহী বর্ণাঢ্য পরিবারের সন্তান এবং সিলেটের মেয়ে হিসেবে সিলেটবাসী তাঁকে নিয়ে গর্ব করে। তাঁর পিতা মরহুম মাহবুব আলী খান বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সাবেক প্রধান। ফ্যাসিস্ট সরকার তার রোশানল থেকে ডা. জোবায়দা রহমানকেও বাদ দেয়নি। তার বিরুদ্ধেও সাজানো মামলায় রায় দিয়েছে। যতই নির্যাতন নিপিড়ন করা হউক না কেন বিএনপির চলমান আন্দোলন দমন করা যাবে না। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে ফ্যাসিবাদের মসনদ ভেঙ্গে আমরা জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করব।”

বুধবার বাদ আছর হযরত শাহজালাল (র.) এর মাজার প্রাঙ্গনে ডা. জোবায়দা রহমানের জন্মদিন উপলক্ষে সিলেট জেলা বিএনপি আয়োজিত দোয়া মাহফিল ও শিরনী বিতরণ পূর্ব সংক্ষিপ্ত আলোচনাকালে তিনি এসব কথা বলেন।


এসময় উপস্থিত ছিলেন- সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ইশতিয়াক সিদ্দিকী, সিলেট জেলা যুবদলের সভাপতি এডভোকেট মুমিনুল ইসলাম মুমিন, মহানগর সেচ্ছসেবক দলের আহবায়ক মাহবুবুল হক চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আহাদ চৌধুরী শামীম, ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক জয়নাল আহমদ রানু, এডভোকেট ফেরদৌস আহমদ, সহ প্রচার সম্পাদক শাহীন আলম জয়, সহ ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আহমদ সোলায়মান, রাসেল আহমদ, আলী হায়দার মজনু, জামাল আহমদ প্রমুখ।

দোয়া মাহফিলে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও আরাফাত রহমান কোকোর আত্মার মাগফেরাত কামনা, বেগম খালেদা জিয়া, তারেক রহমান ও ডা. জোবায়দা রহমানের সুস্থতার জন্য মোনাজাত করা হয়। দোয়া মাহফিল শেষে শিরনী বিতরণ করা হয়।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/প্রেবি/এসডি-৫৩৭৮