সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ১৩ টি ইউনিয়নের বন্যাদূর্তদের মাঝে বিতরণের জন্য সাড়ে ৩১ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ হয়েছে। যা আশ্রয়কেন্দ্রে আশ্রিত লোকজনকে অগ্রাধিকার দিয়ে বন্যাদুর্গত মানুষের মধ্যে বিতরণ করা হচ্ছে।
 

অপর দিকে প্রতিদিনের ন্যায় গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রশাসনের শুকনো খাবার বিতরণের পাশাপাশি গোয়াইনঘাট থানা পুলিশের উদ্যোগে বিছনাকান্দি ও রুস্তমপুর ইউনিয়নের দুটি আশ্রয় কেন্দ্রের বন্যার্তদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করা হয়।


গোয়াইনঘাট উপজেলা প্রশাসন এবং গোয়াইনঘাট থানার পক্ষ থেকে উপরোক্ত ত্রাণসামগ্রী, খাদ্য সহায়তা বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: তৌহিদুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো: সাঈদুল ইসলাম, গোয়াইনঘাট থানার ওসি রফিকুল ইসলাম পিপিএম, উপজেলা পরিষদ এর ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম আম্বিয়া কয়েস, জেলা পরিষদ সদস্য সুবাস দাস এবং স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধিগণ।
 

গোয়াইনঘাট উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের ৩১৩টি গ্রামের মধ্যে ২২৩ টি গ্রাম প্লাবিত রয়েছে। এছাড়াও প্রায় ১৫০০ হেক্টর কৃষি জমি নিমজ্জিত। বর্তমানে ২৯টি আশ্রয়কেন্দ্রআশ্রিত লোকসংখ্যাঃ ১৭২৫জন আশ্রিত গবাদিপশুর সংখ্যাঃ ৭২৮টি।

বুধবার সন্ধ্যা ৬ টায় গোয়াইন নদী (গোয়াইনঘাট পয়েন্ট) বিপদসীমাঃ ১০.৮২ মিটার ও প্রবাহমানঃ ১০.৮৪ মিটার (বিপদসীমার ০২সে:মি: উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে)।  পিয়াইন নদী (জাফলং পয়েন্ট)বিপদসীমাঃ ১৩.০০ মিটার ও প্রবাহমানঃ ১১.১১ মিটার। সারি নদী (সারিঘাট পয়েন্ট)বিপদসীমাঃ ১২.৩৫ মিটার ও প্রবাহমানঃ ১২.১৪ মিটার।
 

সিলেট জেলাধীন গোয়াইনঘাট উপজেলার সীমান্তবর্তী ভারতের মেঘালয় রাজ্যের “ওয়েষ্ট জৈন্তা হিলস” ও “ইষ্ট খাসি হিলস” জেলায় আগামী ২০ জুন ৬৫মিঃমিঃ ও ২১ জুন ১১০মিঃমিঃ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। (সোর্সঃ মেঘদূত এপস-আইএমডি)।


 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/মতিন/এসডি-৫৩৮২