সিলেটের জকিগঞ্জে বিরোধের জেরে শত বছরের পুরনো চলাচলের রাস্তায় গাছ রোপন করে বাঁশ দিয়ে জনসাধারণ চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ঘটনাটি উপজেলার বারঠাকুরী ইউপির দাসগ্রামে ঘটেছে।


চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি বন্ধ করার কারণে কয়েকটি বাড়ির লোকজনসহ শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েছেন।

এ নিয়ে রবিবার দাসগ্রামের মৃত বিনোদ দাসের ছেলে বিমল দাস (৩৫) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে ফৌজদারী আইনের ১৩৩ ধারার বিধানমতে রাস্তার প্রতিবন্ধকতা অপসারণে হস্তক্ষেপ চেয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগে বিমল দাস উল্লেখ করেন, দাসগ্রামের সামনের রাস্তা দিয়ে তিরাশী, টিলারগ্রাম, খারিজা ও মির্জারচক গ্রামের শত বছরের পুরনো রাস্তা বিদ্যমান রয়েছে। ওই রাস্তা দিয়ে এলাকার লোকজনের যাতায়াতসহ ছাত্র-ছাত্রীরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যায়। এমনকি আশপাশ গ্রামের লোকজন হাওরে ও মাঠে কৃষি খেতে যাতায়াত করেন। কিন্তু সম্প্রতি রাস্তার প্রবেশমুখে একই গ্রামের মৃত মানিক লাল গোস্বামীর ছেলে রতন গোস্বামী (৪০), মৃত সুধন্য বিশ্বাসের ছেলে বাবুল বিশ্বাস (৬০), মৃত মলঙ্গ দাসের ছেলে মনজিৎ দাস (৪০), মৃত কালি কুমার বিশ্বাসের ছেলে তাপস বিশ্বাস (৫৫), মৃত মানিক লাল গোস্বামীর ছেলে শিতন গোস্বামী (৩২) সুপারী ও কদম গাছ রোপন করে বাঁশ দিয়ে বন্ধ করে ছাত্র-ছাত্রীসহ এলাকার জনসাধারণ চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করেছেন। এতে গ্রামের ভেতরের কয়েকটি বাড়ির লোকজন চলাচল করতে পারছেন না। বিষয়টি সমাধানে বারঠাকুরী ইউপির চেয়ারম্যান মহসিন মর্তুজা চৌধুরী টিপু উদ্যোগ নিলেও শেষ পর্যন্ত নিষ্পত্তি হয়নি।

তবে রতন গোস্বামীর স্ত্রী শুক্লা গোস্বামী জানান, তিনি তার জায়গায় গাছ রোপন করেছেন। রাস্তাটি তার কেনা জায়গার ওপর। নিরাপত্তাজনিত কারণে তিনি রাস্তা বন্ধ করেছেন। পূর্বে লোকজন চলাচল করেছেন ঠিক কিন্তু এখন আর কাউকে তার জায়গার ওপর দিয়ে রাস্তা ব্যবহারের সুযোগ দেবেন না। প্রতিবেশীর যারা ওই রাস্তা চলাচল করতো দিয়ে তারা তাকে মারধর করেছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

এ নিয়ে জানতে চাইলে বারঠাকুরী ইউপির চেয়ারম্যান মহসিন মর্তুজা চৌধুরী টিপু জানান, তিনি সরেজমিন গিয়ে রাস্তা বন্ধ না করার জন্য রতন গোস্বামীসহ অন্যদেরকে বলেছিলেন এবং তাদের বিরোধ নিরসনের চেষ্ঠা করেছিলেন। কিন্তু যারা রাস্তা বন্ধ করেছে তারা কোনভাবেই সামাজিক বিচার মানেনি।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আফসানা তাসলিম বলেন, চলাচলের রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা নিয়ে তিনি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। সরেজমিন তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/হাছিব/এসডি-৫৪৯২