সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে স্লুইসগেটের সকল কপাট খুলে দেওয়া সহ নদী, নালা, খাল, বিলের পানি দ্রুত নিস্কাসনের দাবীতে পানি বন্দি মানুষের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 

সোমবার (২৪ জুন) সকাল ১১টায় জগন্নাথপুর পৌর পয়েন্টে এ বিশাল মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।
 


জগন্নাথপুর পৌরসভার সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও ৫ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শফিকুল হক শফিকের সভাপতিত্বে ও সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম লাল মিয়ার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন- জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আলাল হোসেন, ৪ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ কামাল হোসেন, ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কৃষ্ণ চন্দ্র চন্দ, ব্যবসায়ী শশী কান্ত গোপ, এম এ মতিন, মোঃ ছোরাব উল্লা, আব্দুল শহীদ, ছায়াদ আলী, বারিক উল্লা, আকলিছ আলী, মোঃ ছুরুক মিয়া, আয়ফর  আলী, ফটিক মিয়া, সেবন মিয়া, শিশু মিয়া, মোঃ শফিক মিয়া, রহিম উল্লা, কামরুল ইসলাম প্রমূখ।
 

সভায় বক্তারা বলেন, স্লুইসগেটের সকল কপাট খুলে না দেওয়া ও নলুয়া এবং মই হাওরের বেরীবাঁধ কেটে না দেওয়ায় পানির স্বাভাবিক গতি পথ রুদ্ধ হচ্ছে। ফলে এলাকার বাসা- বাড়ীতে পানি প্রবেশ করছে। পানি যাতে সহজে নিষ্কাশন হয় এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য মানববন্ধনে জোর দাবী জানানো হয়।
 

বক্তারা বলেন, চলমান বন্যায় বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার লাখ লাখ মানুষ চরম দূর্ভোগে পড়েছেন। জগন্নাথপুর উপজেলার নদী, নালা, খাল বিলের পানি দ্রুত গতিতে নিষ্কাশন না হওয়ায় প্রতিটি এলাকার বাড়ি-ঘর বন্যায় প্লাবিত হয়ে গেছে। বন্যার পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় পানি ধীর গতিতে নামছে। এতে সাধারণ মানুষ পরিবার পরিজন ও গবাদিপশু নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছেন। বিশেষ করে, জগন্নাথপুর-সুনামগঞ্জ রোডের অ-পরিকল্পিত সুইচগেট দিয়ে পানি তেমন না কাঁটায় স্লুইসগেট  এলাকা সহ পূর্বাঞ্চলের মানুষ পানিবন্ধি হয়ে পড়েছেন।
 

এছাড়া জগন্নাথপুর -সুনামগঞ্জ রোড সহ রানীগঞ্জ রোডের পূরাতন ব্রীজ কালভাট গুলো প্রায় অচল অবস্থায় পড়ে আছে। তাছাড়া অধিকাংশ বেড়িবাঁধ অদৃশ্য কারণে ভেঙে দেয়া হয়নি, বাঁধের উপর দিয়ে পানি উপচে পড়তে দেখা গেছে।
 

বক্তারা আরো বলেন, জনগণের কষ্টের কথা চিন্তা করে সরকারের বরাদ্ধ সঠিক নিয়মে এবং পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজে লাগালেই প্রতি বছরের অকাল বন্যার কবল থেকে ভূক্তভোগী জনসাধারণকে চরম কষ্ট ও ক্ষয়ক্ষতির হাত থেকে বাঁচানো সম্ভব।
 

বক্তারা জরুরি ভিত্তিতে জগন্নাথপুর স্লুইসগেটের সকল কপাট খুলে দিয়ে পানি দ্রুত নিষ্কাসন ও পরিকল্পনামতো প্রশস্থ করণ কিংবা নতুন ব্রীজ নির্মানের জন্য সরকারের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/সুনু/এসডি-৫৫২০