প্রকাশিত: ০৯ এপ্রিল, ২০২৩ ০০:০৪ (শুক্রবার)
সিলেটে ৩ পয়েন্টে মহানগর বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি পালিত

সিলেট মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ বলেছেন, আওয়ামী লীগ ও গণতন্ত্র একসাথে চলে না। অবৈধভাবে ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে গণতন্ত্র হত্যা করে একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠার ইতিহাস আওয়ামী লীগের আছে। আর বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এদেশে প্রথম বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। আর শহীদ জিয়ার উত্তরসূরী বেগম খালেদা জিয়া দেশের গণতন্ত্রকে সুসংহত করেছেন। বর্তমানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনের জন্য লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। এই লড়াইয়ে জনতার বিজয় নিশ্চিত হতে চলেছে। পুলিশ দিয়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচীতে বাধা দিয়ে সরকারের শেষ রক্ষা হবেনা। যতই ষড়যন্ত্র করা হোক না কেন, নিরপেক্ষ তত্তাবধায়ক সরকার ছাড়া দেশে ফ্যাসিবাদী কায়দার আর কোন নির্বাচনের আওয়ামী স্বপ্ন পূরণ হতে দেয়া হবেনা।

শনিবার বিকেলে নগরীর পাঠানটুলা, যতরপুর পয়েন্ট ও উপশহর এবিসি পয়েন্ট এলাকায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সিলেট মহানগর বিএনপি আয়োজিত পৃথক অবস্থান কর্মসূচীতে বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।

বিদ্যুৎ, গ্যাসসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধ্বগতি, ‌'আওয়ামী সরকারের সর্বগ্রাসী দুর্নীতি'র প্রতিবাদে এবং পূর্বঘোষিত ১০ দফা বাস্তবায়নের দাবীতে সারা
দেশের ন্যায় সিলেটেও বিএনপির পৃথক অবস্থান কর্মসূচী পালিত হয়।

মহানগর বিএনপির উদ্যোগে শনিবার বিকেল ২টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নগরীর পাঠানটুলা, যতরপুর পয়েন্ট ও উপশহর এবিসি পয়েন্টে পৃথক অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়। পৃথক অবস্থান কর্মসূচীতে মহানগর ও ২৭টি ওয়ার্ড বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের সকল পর্যায়ের বিপুল সংখ্যক দলীয় নেতাকর্মী অংশ নেন।

পাঠানটুলা এলাকায় সিলেট মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদ হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও মহানগর আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মাহবুব কাদির শাহীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসূচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী।

বক্তব্য রাখেন মহানগর বিএনপির সাবেক আহ্বায়ক আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক কাউন্সিলার রেজাউল
হাসান কয়েস লোদী, আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মাহবুব চৌধুরী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মাহবুবুল হক চৌধুরী, ৫নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি সাদিকুর রহমান সাদিক, ৯নং ওয়ার্ড সভাপতি আমির হোসেন, ২নং ওয়ার্ড সভাপতি বাবু নিহার রঞ্জন দে, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব শাকিল মোর্শেদ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব আফসর খান, ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আব্দুল ওয়াদুদ মিলন, ৪নং ওয়ার্ড সভাপতি মিজানুর রহমান মিজান, ৮নং ওয়ার্ড সভাপতি সবুর আহমদ, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আব্দুল্লাহ শাফি শাহেদ, ৮নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিনহাজ পাঠান, ৯নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুবেল বক্স, ১১নং ওয়ার্ডের
সাধারণ সম্পাদক আবু সাঈদ মোঃ তায়েফ, ১৫নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক রাসেল আহমদ, মহানগর যুবদলের সাবেক সদস্য উসমান গণি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক মাসুম ইবনে রাজ্জাক রুমেল, আবু আহমেদ আনসারী, রাসেল আহমদ খান ও সাব্বির আহমদ প্রমূখ। কোরআন তেলাওয়াত করেন আলী হোসেন মুক্তার।

যতরপুর এলাকায় ১৫নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি সোয়াইব আহমদ শোয়েবের সভাপতিত্বে ও মহানগর আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য মুর্শেদ আহমদ মুকুলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসুচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন। বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক জিয়াউল গণি আরেফিন জিল্লুর, নজিবুর রহমান নজিব, আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য নুরুল আলম সিদ্দিকী খালেদ, মহানগর যুবদলের সভাপতি শাহনেওয়াজ বখত চৌধুরী তারেক ও সাধারণ সম্পাদক মির্জা সম্রাট হোসেন, ১০নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আব্দুল হাকিম, ১১নং ওয়ার্ড সভাপতি শেখ কবির আহমদ, ১৩নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আব্দুল মোমিন, ১৮নং ওয়ার্ড সভাপতি তারেক আহমদ, ১০নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমদ, ১২নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান আরাফাত চৌধুরী জাকির, ১৮নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ লাকি প্রমূখ।

নগরীর উপশহর এবিসি পয়েন্টে সিলেট মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ সাফেক মাহবুবের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অবস্থান কর্মসূচীতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম। কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন, মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক সৈয়দ মঈনুদ্দিন সোহেল, এডভোকেট রোকশানা বেগম শাহনাজ, মহানগর আহ্বায়ক কমিটির সাবেক সদস্য আফজাল উদ্দিন ও মতিউল বারী চৌধুরী খুর্শেদ, মহানগর বিএনপির সাবেক স্বাস্থ্য সম্পাদক ডা: আশরাফ আলী, সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক রেজাউল করিম নাচন, জেলা বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক রাহাত চৌধুরী মুন্না। উপস্থিত ছিলেন, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি সুদীপ জ্যোতি এষ, সাধারণ সম্পাদক ফজলে রাব্বী আহসান, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন দিনার, ১৯নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নাদির খান, সাধারণ সম্পাদক সুচীত্র চৌধুরী বাবলু, সাংগঠনিক সম্পাদক সফিকুর রহমান সুমন, ২০নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি লুৎফুর রহমান মোহন, সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ লোকমানুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক আকবর হোসেন, কয়ছর, ২১নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি মো: আবুল খায়ের, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মালেক সেকু, ২২নং ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রফিক আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুর রহমান, ২৩নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি রাসেল আহমদ, সাধারণ সম্পাদক জমজম বাদশা, সাংগঠনিক সম্পাদক সুজন আহমদ, ২৪নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আব্দুর রহিম মালিক, সাধারণ সম্পাদক রহিম উদ্দিন রামু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফরহাদ আহমদ, ২৫নং ওয়ার্ড বিএনপির ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি বাচ্চু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক সুমন আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপু আহমদ, ২৬নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আক্তার রশীদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপু বক্স, ২৭নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি নাজিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম ও সাংগঠনিক সম্পাদক মঈন খান প্রমূখ।

কর্মসূচী উপলক্ষে নগরীর ২৭টি ওয়ার্ডকে পৃথক ৩টি জোনে ভাগ করে ৩টি পৃথক স্থান নির্ধারণ করা হয়। ১নং জোন পাঠানটুলা (মদীনামার্কেট) এলাকায় ১ থেকে ৯নং ওয়ার্ড বিএনপি, ২নং জোন যতরপুর পয়েন্ট (আগ্রা কমিউনিটি সেন্টার সংলগ্ন) ১০ থেকে ১৮নং ওয়ার্ড বিএনপি ও ৩নং জোন উপশর এবিসি পয়েন্টে ১৯ থেকে ২৭নং ওয়ার্ড বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়।

সিলেটভিউ২৪ডটকম / স.বি / ডি.আর