প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল, ২০২৩ ১৪:০২ (শুক্রবার)
লোডশেডিংয়ের যন্ত্রণায় প্রকৌশলীকে ‘হুমকি’, থানায় জিডি

এক ঘণ্টা বিদ্যুৎ থাকলে ৪/৫ ঘণ্টাই অন্ধকারে রাখা হয়। তাছাড়া ঈদের পরই ৩০ এপ্রিল শুরু হচ্ছে এসএসসি পরীক্ষা। ফলে লোডশেডিং ও গরমের তীব্রতায় শিক্ষার্থীদের পড়ালেখাও ব্যাহত হচ্ছে। সিলেটে লোডশেডিংয়ের মাত্রা বেড়েছে দুই সপ্তাহ ধরে। রাত-দিন সমানতালে চলছে লোডশেডিং।

এ অবস্থায় গত রোববার রাতে নগরীতে লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেন ভোক্তভোগীরা। এ নিয়ে মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। আর লোডশেডিংয়ের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ হয়ে প্রকৌশলীকে হুমকি দিলেন জনৈক গ্রাহক।  

 গত ১৭ এপ্রিল বিকেলে ক্ষুব্দ এক গ্রাহক পিডিবির (বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২) প্রকৌশলী শামছ-ই-আরেফিনের সরকারি মুঠোফোনে ফোন করে হুমকি দিয়েছেন।

এ ঘটনায় পিডিবির (বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২) প্রকৌশলী শামছ-ই-আরেফিন ১৮ এপ্রিল মহানগর পুলিশের কতোয়ালী থানায় লিখিত সাধারণ ডায়েরি করেছেন।

সাধারণ ডায়েরি সূত্রে জানা গেছে, গত ১৭ এপ্রিল বিকেলে পিডিবির (বিক্রয় ও বিতরণ বিভাগ-২) প্রকৌশলী শামছ-ই-আরেফিনের সরকারি মুঠোফোনে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তি ফোন করেন। তিনি প্রথমে বিদ্যুৎ বিভ্রাটের কারণ জানতে চান। এরপর প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটুক্তি করেন। এক পর্যায়ে ওই ব্যক্তি অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধরের হুমকি দেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১০ থেকে ১২ ঘণ্টারও বেশি সময় নগরে লোডশেডিংয় হয়েছে। নগর ও আশপাশের এলাকায় তীব্র লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ইআ-০৭