প্রকাশিত: ০৭ মে, ২০২৩ ১০:৪২ (বুধবার)
শরীরের কী সর্বনাশ, টয়লেটে বসেও মোবাইল ফোন বা ট্যাব চাপাচাপি! 

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বড় একটা জায়গা দখল করে নিয়েছে মোবাইল ফোন। বাসায়, অফিসে, মাঠে-ঘাটে, বাজারে, এমনকি কোথাও যাওয়া-আসার পথেও গাড়িতে বসে মোবাইল চাপাচাপি করা একটা সাধারণ বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

 

তবে আরও অবাক হওয়ার এবং আশঙ্কার বিষয় যে, মোবাইল ফোন নিয়ে টয়লেটে যাওয়ার অভ্যাসও অনেকের রয়েছে! টয়লেটে বসে চ্যাট করা বা নাটক-সিনেমা দেখার অভ্যাসও রয়েছে অনেকের। এতে শরীরের কী সর্বনাশ ডেকে আনছেন জানেন কি?

 

২০১৬ সালে চালানো বিশেষ এক সমীক্ষায় দেখা যায়, অস্ট্রেলিয়া ও আমেরিকার প্রায় ৭৫ শতাংশ বাসিন্দারই এই অভ্যাস রয়েছে। যা রীতিমতো বিপজ্জনক বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। তবে শুধু অস্ট্রেলিয়া-আমেরিকা নয়, বাংলাদেশেও অনেকের এই অভ্যাস রয়েছে।

 

বিশেষজ্ঞদের কথায়, বাথরুমের দরজার লক, ফ্লাশ, কমোড, কলের ট্যাপ ইত্যাদিতে প্রচুর ব্যাকটেরিয়া জমে থাকে। বাথরুমের আর্দ্র আবহাওয়া এই সব ব্যাকটেরিয়ার জন্য আরও ভালো। এই আবহাওয়ায় ব্যাকটেরিয়াগুলো তরতরিয়ে বেড়ে ওঠে।

 

এবার বাথরুমে ফোন বা ট্যাব নিয়ে গেলে তার বাইরের কভারে সেগুলো স্পর্শের মাধ্যমে এসে জড়ো হয়। সালমোনেল্লার মতো মারাত্মক ব্যাকটেরিয়াও থাকে বাথরুমের ভেতর। এই ব্যাকটেরিয়াই প্রভূত ক্ষতি করে শরীরের।

 

বিজ্ঞানীদের কথায়, এই ধরনের ব্যাকটেরিয়া একবার ফোনের মাধ্যমে হাত হয়ে পেটে গেলে পেটের নানারকম রোগ হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। সালমোনেল্লার মতো ব্যাকটেরিয়া থেকে টাইফয়েডও হতে পারে। তাই মোবাইল ফোন বা ট্যাব নিয়ে বাথরুমে না যাওয়াই ভালো।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/ইআ-০৩