প্রকাশিত: ০৯ মে, ২০২৩ ১৫:২৬ (সোমবার)
সুশৃংখল সমাজব্যবস্থা উপহার দিতে শিক্ষার বিকল্প নেই : গোলাপগঞ্জে এমপি নাহিদ

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেছেন, দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে ও নতুন প্রজন্মকে একটি সুশৃঙ্খল সমাজ ব্যবস্থা উপহার দিতে শিক্ষার কোন বিকল্প নেই। উন্নত দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার সাথে বর্তমান বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থা এখন আর পিছিয়ে নেই। 

তিনি বলেন, প্রযুক্তি ও উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থার বিকাশ ঘটিয়ে বিশ্ব দরবারে দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

সোমবার (৮মে) সকাল ১১টায় উপজেলার বুধবারী বাজার ইউনিয়নের আল এমদাদ ডিগ্রী কলেজ মাঠে চন্দরপুরে সরকার কর্তৃক আশ্রয় কেন্দ্র কাম একাডেমিক ভবণ নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথাগুলো বলেন। 

অত্র প্রতিষ্ঠানের গভর্ণিং বডির সভাপতি মঞ্জুর আহমদের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিজ্ মৌসুমী মান্নান, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সৈয়দ মিছবাহ উদ্দিন, অধ্যক্ষ আবুল কালাম আজাদ, নুরুল ইসলাম বেলাল, মাহবুবুল হক প্রমূখ। 

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সূচিত অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধান অতিথিসহ বিশেষ অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করেন কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। 

এসময় কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী আফসানা আক্তার রুমা মানপত্র পাঠ করেন।

জানা যায়, ৩ কোটি ২১লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৩তলা বিশিষ্ট ফ্লাড সেন্টারটির নিচ তলা ফাঁকা থাকবে বন্যা দূর্গতদের জন্য এবং অপর দুটি তলায় একাডেমিক কার্যক্রম চলবে। 

প্রধান অতিথি আরও বলেন, একসময় কুশিয়ারার পূর্ব অংশ পশ্চাৎপদ ছিল। কিন্তু বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ছোঁয়ায় এখন আর পিছিয়ে নেই। বহরগ্রাম-শিকপুর ব্রীজটিও প্রক্রিয়াধীন। এটি বাস্তবায়িত হলে শিক্ষায়-দিক্ষায় আরও এগিয়ে যাবে এ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এখন আগের তুলনায় ৪গুন খাদ্য উৎপাদন বাড়ছে। দেশে দারিদ্রতাও কমে আসছে। 

ঘনবসতি পূর্ণ দেশ দুনিয়ার কোথাও নেই উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিদ্যুতের ব্যবহারের পাশাপাশি উৎপাদনও বাড়ছে। দ্রব্য-মূল্যের উর্ধ্বগতির ব্যাপারে তিনি বলেন, বৈশ্বিক যুদ্ধ মহামারীর কারণে এমনটাই হচ্ছে। তারপরও সরকার অনেকটা ভর্তূকি দিচ্ছে তবে আমাদেরও সাশ্রয়ী হতে হবে। 

গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজারের উন্নয়নে আপনাদের কর্মী হয়ে কাজ করতে গিয়ে যে অবদান এর সবকিছু আপনাদের। আপনারাই আমার শক্তি। যা কিছু ভাল সবই আপনাদের, ভুল ত্রুটি আমার ধরিয়ে দিবেন শুধরিয়ে নিয়ে এগিয়ে যাব। বিশ্বমানের শিক্ষায় এগিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে সকল শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সচেষ্ঠ থাকতে হবে। পাশাপাশি শিক্ষকদেরও প্রযুক্তিগত শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে আন্তরিক ভাবে কাজ করতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন রাজনৈতিক-সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক-শিক্ষার্থী, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকবৃন্দসহ এলাকার বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।


সিলেটভিউ২৪ডটকম / জয় / ডি.আর