প্রকাশিত: ১০ মে, ২০২৩ ১৬:০৩ (রবিবার)
শুক্রবার ভারত মহাসাগরীয় সম্মেলন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

আগামী ১২-১৩ মে ঢাকায় ষষ্ঠ আন্তর্জাতিক ভারত মহাসাগরীয় স‌ম্মেলন অনুষ্ঠিত হ‌চ্ছে। স‌ম্মেল‌নের উ‌দ্বোধন কর‌বেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হা‌সিনা। 
 

বুধবার (১০ মে) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ভারত মহাসাগরীয় সম্মেলন নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

মন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধিভুক্ত আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশন আগামী ১২-১৩ মে ঢাকায় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে ইন্ডিয়ান ওশান কনফারেন্স আয়োজন করতে যাচ্ছে। স‌ম্মেল‌নে ২৫টি দেশের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিসহ প্রায় ১৫০ জন প্রতিনিধি অংশ নেবেন। 
 

মো‌মেন ব‌লেন, সম্মেলনটি মূলত ভারত মহাসাগরের উপকূলবর্তী দেশগুলোকে নিয়ে আয়োজন করা হলেও এতে পরিবর্তিত বৈশ্বিক পেক্ষাপটে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও প্রাসঙ্গিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা হয়ে থাকে। এ‌তে প্রতিপাদ্য বিষয় 'স্থিতিশীল ভবিষ্যতের জন্য শান্তি, সমৃদ্ধি এবং অংশীদারিত্ব'। 
 

তিনি জানান, সম্মেলনে মরিশাসের রাষ্ট্রপতি ও মালদ্বীপের উপরাষ্ট্রপতি অংশ নেবেন। ভারত, ভুটান, নেপাল, বাহরাইন ও সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী; সিশেলস, শ্রীলঙ্কা, মাদাগাস্কারের মন্ত্রী পর্যায়ের প্রতিনিধিরাও অংশগ্রহণ করবেন।


পররাষ্ট্রমন্ত্রী ব‌লেন, সম্মেলন আয়োজনের মাধ্যমে বাংলাদেশের সঙ্গে আঞ্চলিক রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে ভারত মহাসাগর উপকূলবর্তী দেশগুলোর সঙ্গে অংশীদারত্ব সুদৃঢ় হবে বলে আশা করা যায়। পরিবর্তনশীল ভূরাজনৈতিক এবং ভূ-অর্থনেতিক বাস্তবতার নিরিখে এই সম্মেলন আয়োজনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে বিশেষ অংশীদার হিসেবে বাংলাদেশের অবস্থান আরও সুসংহত হবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
 

তিনি বলেন, এই সম্মেলনের আলোচনা থেকে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো চলমান বৈশ্বিক ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ভবিষ্যতে কী ধরনের পদক্ষেপ নেবে, সে বিষয়ে ধারণা পাওয়া যাবে এবং পরবর্তীতে বিভিন্ন সংকট পরিস্থিতি মোকাবিলা এবং তা থেকে উত্তরণের জন্য প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণে বাংলাদেশের জন্য সহায়ক হবে।
 

এর আগে ৫টি সম্মেলন যথাক্রমে ২০১৬ সালে সিঙ্গাপুরে, ২০১৭ সালে শ্রীলংকায়, ২০১৮ সালে ভিয়েতনামে, ২০১৯ সালে মালদ্বীপে এবং ২০১১ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এবারের ৬ষ্ঠ সম্মেলন ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে।
 

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মেরিটাইম অ্যাফেয়ার্স ইউনিটের প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) খুরশেদ আলম ও ফরেন সার্ভিস একাডেমির রেক্টর মাশফি বিনতে শামস।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এনটি