প্রকাশিত: ১৯ মে, ২০২৩ ০০:২১ (রবিবার)
সিসিক নির্বাচনে মাঠে থাকবেন ১৪ ম্যাজিস্ট্রেট

আগামী সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সংক্ষিপ্ত বিচারকাজ সম্পন্ন করতে ৪২টি ওয়ার্ডে ১৪ জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তারা ভোটের আগে-পরে পাঁচ দিনের জন্য নির্বাচনী অপরাধ আমলে নিয়ে বিচারকাজ সম্পন্ন করবেন। ভোটের মাঠের অনিয়ম, অপরাধ আমলে নিয়ে তাৎক্ষণিক রায় দিতে পারবেন তারা।

নির্বাচন কমিশনের (ইসি) এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংস্থাটির আইন শাখার উপ সচিব মো. আব্দুছ সালাম সম্প্রতি আইন ও বিচার বিভাগের সচিবকে চিঠি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

এতে উল্লেখ করা হয়েছে, স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) নির্বাচন বিধিমালা, ২০১০ এর বিধি ৮৬-তে উল্লেখিত বিধি ৭২, বিধি ৭৪, বিধি ৭৫, বিধি ৭৬, বিধি ৭৭ এর উপবিধি (১) ও বিধি ৭৮-এর অধীন নির্বাচনী অপরাধগুলো দ্য কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিউর, ১৮৯৮ এর সেকশন ১৯০ এর সাবসেকশন ১-এর অধীনে আমলে নেওয়া ও সংক্ষিপ্ত পদ্ধতিতে বিচারের নিমিত্ত প্রথম শ্রেণির ম্যাজিস্ট্রেটের ক্ষমতা সম্পন্ন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা আবশ্যক। এ জন্য সিলেট সিটিতে ১৪ জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করা প্রয়োজন।

পৃথক দুটিতে চিঠিতে আরো বলা হয়েছে, চার সিটি নির্বাচনের ভোটের দুই দিন আগে ভোটের দিন ও ভোটের দুই দিন পর পর্যন্ত মোট পাঁচদিনের জন্য তাদের নিয়োগের সিদ্ধান্ত দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এ অবস্থায় নির্বাচনের জন্য বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট মনোনয়ন দেয়ার বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের সঙ্গে পরামর্শক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য নির্দেশিত হয়ে অনুরোধ করা হয়েছে চিঠিতে।

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মিডিয়া সেল কর্মকর্তা সৈয়দ কামাল হোসেন সিলেটভিউ-কে জানান, সিটি করপোরেশনের ৪২টি ওয়ার্ডকে ভাগ করে ১৪ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। একজন ম্যাজিস্ট্রেট তিনটি ওয়ার্ডের দায়িত্ব পালন করবেন। প্রার্থীদের নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন, অনিয়ম, অপরাধ আমলে নিয়ে তাৎক্ষণিক রায় দিতে পারবেন তারা। প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দের পর তারা কাজ শুরু করবেন।


সিলেটভিউ২৪ডটকম / নাজাত