প্রকাশিত: ২০ মে, ২০২৩ ১৭:৩০ (রবিবার)
বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্বে কেউ ফাটল ধরাতে পারবে না : জিএম কাদের 

জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেছেন, ভারত হচ্ছে আমাদের সবচেয়ে কাছের এবং বড় প্রতিবেশী। শুধু একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ নয়, সব প্রয়োজনেই ভারত বন্ধুপ্রতিম দেশ হিসেবে আমাদের পাশে ছিল। আমাদের সংস্কৃতি, চেহারা ও ইতিহাসে মিল রয়েছে।
 

শনিবার (২০ মে) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের দয়াগঞ্জে জাতীয় শিব মন্দির চত্বরে স্বামী শ্রী অধোক্ষানন্দ দেবতীর্থ মহারাজের নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।
 

জিএম কাদের বলেন, বর্তমানে ভারত শুধু সামরিক, অর্থনৈতিক শক্তি হিসেবেও আত্মপ্রকাশ করেছে। বন্ধুপ্রতিম দেশের উন্নয়নের সঙ্গে আমরাও উপকৃত হচ্ছি। ব্যবসা, চিকিৎসা এবং শিক্ষার জন্যও ভারত আমাদের কাছে দরকারি। আমাদের স্বার্থেই ভারতের সঙ্গে সুস্পর্ক রাখা জরুরি।
 

প্রতিবেশী সব দেশের সঙ্গেই জাতীয় পার্টি বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কে বিশ্বাস করে বলে উল্লেখ করে সাবেক এই মন্ত্রী বলেন, ভারতের সঙ্গে আমাদের যেমন সম্পর্ক রাখা দরকার, তেমনি আমাদের সঙ্গেও ভারতের সম্পর্ক রাখা জরুরি। ভৌগলিক কারণেই বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতে সুসম্পর্ক বজায় রাখতে হবে। কারণ, ভারতে নিরাপত্তা বিঘ্নিত করতে বাংলাদেশকে যেন কেউ ব্যবহার করতে না পারে। বাংলাদেশকে ব্যবহার করে কেউ যেন ভারতে নিরাপত্তা বিঘ্নিত করতে না পারে।
 

পরস্পরের প্রয়োজনীয়তার ভিত্তিতে বাংলাদেশ ও ভারত সম্পর্ক শক্তিশালী হয়েছে দাবি করে জিএম কাদের বলেন, বাংলাদেশ ও ভারতের বন্ধুত্বে কেউ ফাটল ধরাতে পারবে না। এমন সম্পর্কে পরস্পরের সঙ্গে এগিয়ে চলা সহজ হয়। ভারতের প্রয়োজনে আমরা সহায়তা দেবো, আবার আমাদের প্রয়োজনে ভারত সহায়তা করবে এটাই দুটি দেশের মানুষের প্রত্যাশা।
 

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ভারতের ত্রিপুরা বিধান সভার ডেপুটি স্পিকার শ্রী রাম প্রসাদ পাল। সভাপতিত্ব করেন বিধান বিহারী গোস্বামী।



 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/ডেস্ক/এসডি-৩৯৩