হঠাৎ করেই শুক্রবার (৫ আগস্ট) রাত ১২টার পর থেকে জ্বালানির দাম বৃদ্ধি করেছে সরকার। খুচরা মূল্য ডিজেল ১১৪ টাকা প্রতি লিটার, কেরোসিন ১১৪ টাকা প্রতি লিটার, অকটেন ১৩৫ টাকা প্রতি লিটার ও পেট্রোল ১৩০ টাকা প্রতি লিটার বিক্রি হচ্ছে।
 
জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর পর আজ শনিবার (৬ আগস্ট) সকাল থেকে পরিবহন সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে ভোগান্তিতে পড়েছেন কাজে বের হওয়া মানুষ। বিশেষ করে বিপাকে পড়েছেন নারী, বৃদ্ধ ও শিশুরা। 

শনিবার সকালে সিলেটের বিভিন্ন এলাকার রাস্থায় দেখা যায়, রাস্তায় গাড়ির অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে আছেন যাত্রীরা। কিন্তু গাড়ির দেখা মিলছে কম। এসব গাড়িতে উঠতে যাত্রীদের রীতিমতো যুদ্ধ করতে হচ্ছে।


রাস্তায় গাড়ি কম থাকায় বাড়তি ভাড়া গুনতে হচ্ছে যাত্রীদের। সিলেট-সুনামগঞ্জ রুটে বাসভাড়া আগে ছিল ১২০ টাকা। এখন ১৪০ টাকা করে দিতে হচ্ছে যাত্রীদের। সিলেট থেকে দিরাই রুটে ১৪০ টাকার ভাড়ায় এখন বাড়তি ২০ টাকা যোগ করে ১৬০ টাকা গুনতে হচ্ছে। 

সিলেট বাস টার্মিনালে অন্যদিনের তুলনায় বাস ছাড়ছে অনেক কম। টার্মিনালে বাস সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে। বাস কম চলাচল করায় দুর্ভোগে পরেছেন যাত্রীরা। গাড়ি না পেয়ে অনেককে টার্মিনালে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে।

বাস চালক ও সহকারীরা বলছেন, শুক্রবার রাতে হাঠৎ জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোয় রাস্তায় গাড়ি নামাচ্ছেন না অনেক পরিবহন মালিকরা। পরিবহন ভাড়া বাড়ানোর ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে আছেন।

সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন সূত্রে জানা গেছে, এতো বাড়তি দামে তেল কিনে গাড়ি চালিয়ে মালিক শ্রমিক কেউই টিকতে পারবে না।রাতে মালিক শ্রমিক নেতারা বৈঠকে বসবেন। ওই বৈঠকেই পরবর্তী করণীয় নির্ধারণ করা হবে। এতে ধর্মঘটসহ কঠোর কর্মসূচির ঘোষণা আসতে পারে।


সিলেটভিউ২৪ডটকম/ইআ