নারায়ণগঞ্জের স্কুলে শিক্ষার্থীদের মাঝে জ্যোতির্বিজ্ঞানের চর্চা ছড়িয়ে দিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের একমাত্র জ্যোতির্বিজ্ঞান বিষয়ক সংগঠন ‘কোপার্নিকাস অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল মেমোরিয়াল অব সাস্টের  (ক্যাম-সাস্ট) সদস্যরা।
 

শুক্রবার দিনব্যাপি নারায়ণগঞ্জের রিয়াজ পাবলিক স্কুলে ক্যাম-সাস্ট ‘কসম্যানিয়ার’ আয়োজন করেছে বলে জানান সংগঠনটির প্রচার সম্পাদক নুসরাত জাহান।


তিনি বলেন, ‘স্কুল এবং কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে জ্যোতিবিজ্ঞানের চর্চা ছড়িয়ে দিতে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে 'কসম্যানিয়া' নামক স্কুল প্রোগ্রামের আয়োজন করে থাকে ‘ক্যাম সাস্ট’। এরই ধারাবাহিকতায় আমরা নারায়ণগঞ্জের একটি স্কুলে এই প্রোগ্রামের আয়োজন করেছি।’

এতে স্কুলটির অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছিল। প্রোগ্রামে শিক্ষার্থীদের নিয়ে কুইজ প্রতিযোগিতা, সৃজনশীল প্রশ্নের পর্ব, চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, কাগজে বিমান বানানো ও নিক্ষেপ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে; এতে বিজয়ীদেরকে পুরস্কৃতও করা হয়েছে।

এসময় শিক্ষার্থীদের মধ্যে অধির আগ্রহ ও উৎফুল্ল লক্ষ্য করা গেছে বলে জানান নুসরাত।

তিনি বলেন, ‘অনুষ্ঠানের শুরুতে কোনো বস্তুর ভরকেন্দ্র সম্পর্কে শিক্ষার্থীরা যাতে খুব সহজেই ধারনা পায় তার জন্যে আয়োজন করা হয়েছে “ম্যাজিক শো”।

এর সঙ্গে শুরু হয় টেলিস্কোপ প্রদর্শনীর, যেখানে শিক্ষার্থীদের টেলিস্কোপ কী, এটা কিভাবে কাজ করে তা নিয়ে ধারণা দেওয়া হয়েছে।
 

এরপর ‘সৌরজগত’ নিয়ে শিক্ষার্থীদের সামনে একটি প্রেজেন্টেশন প্রদান করা হয়েছে। প্রেজেন্টেশনের পর শিক্ষার্থীদের প্রশ্ন করার সুযোগ দেওয়া হয়। প্রশ্নোত্তর পর্বটি শিক্ষার্থীরা বিশেষভাবে উপভোগ করে।
 

পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের জন্য একটি ‘চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা’ অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানান নুসরাত।

এরপর শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে ক্যাম-সাস্ট বিভিন্ন প্রজেক্ট প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে।
 

এরমধ্যে গত কয়েকদিন আগে নাসায় ভ্রমণে যাওয়া টিম অলিকের সৃষ্টি ‘লুনার ভিআর’ প্রজেক্টের মাধ্যমে চাঁদ পর্যবেক্ষণের সুযোগ পেয়েছে নারায়াণগঞ্জের ওই স্কুলটির শিক্ষার্থীরা।

নুসরাত আরও বলেন, ‘এসব ছাড়াও ‘সোলার সিস্টেম মডেল’, ‘সান-ডায়াল’ এবং ক্যাম-সাস্টের নিজস্ব ‘ওয়াটার রকেটের’ প্রজেক্ট দেখানো হয়েছে; একই সঙ্গে বিজ্ঞানের সম্পর্ককে ব্যাখ্যা করে দেখানো হয়েছে শিক্ষার্থীদের।’
 

তাছাড়া শিক্ষার্থীদেরকে শুধু তাত্তি¡ক জ্ঞানই নয়; এর বাইরে কাগজের বিমান আকৃতি বানাতে দেওয়া হয়েছে। তাদের বানানো কাগজের বিমান কত দূর যেতে পারে তা নিয়ে প্রতিযোগিতারও আয়োজন করা হয়েছে।

 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/নোমান/এসডি-১৬