রাজনৈতিক আশ্রয় আবেদন করে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার ক্ষোভে ফ্রান্সের ইমিগ্রেশন অফিসের সামনে ছুরি হাতে অবস্থান নেন এক বাংলাদেশি যুবক। খবরে পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে গুলি চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে। ঘটনাটি গত বুধবার প্যারিসের অদূরে মন্তরোজে ঘটলেও পুলিশ শুক্রবার ঘটনাটি প্রকাশ পায়।

পুলিশ যুবকের জাতীয়তা উল্লেখ করলেও তার নাম-পরিচয় প্রকাশ করেনি। এ ঘটনার পর ফ্রান্সে বাংলাদেশিদের রাজনৈতিক আশ্রয় আবেদনের ওপর বিরূপ প্রতিক্রিয়া পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

পুলিশ ও ফরাসী গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, ২৬ বছর বয়সী ওই যুবক ফ্রান্সে এসে রাজনৈতিক আশ্রয় আবেদন করেন। কিছুদিন আগে ফ্রান্সের অভিবাসন বিষয়ক আদালত থেকে তা প্রত্যাখ্যান হয়। বুধবার সকালে কোনো কারণ ছাড়াই ওই যুবক ফ্রান্সের অভিবাসন বিষয়ক অফিস OFII-এর মন্তরোজ শাখায় প্রবেশ করতে চান। সেখানে দায়িত্বরত সিকিউরিটি তাকে প্রবেশ করতে না দেয়ায় তিনি একটু পরই তার সঙ্গে থাকা ব্যাগ থেকে দুটি লম্বা ছুরি বের করে অফিসের সামনের রাস্তায় অবস্থান নেন। আশপাশের কাউকে আক্রমণ না করলেও কেউ যেন কাছে না ভিড়ে সেই হুমকি দিতে থাকেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়।

ফরাসি পুলিশ যুবকটিকে নিভৃত করতে ইলেকট্রিক পিস্তল বুলেট ব্যবহার করে তাকে অজ্ঞান করে গ্রেফতার করে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে যায়। জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্ত শেষে শুক্রবার তাকে Nanterre আদালতে তোলা হয়। আদালত এই বাংলাদেশি যুবককে ছুরি হাতে বিপজ্জনক ঘোরাঘুরি করার অপরাধে ৩ মাসের জেল দেন। তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় তার শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে চিকিৎসক জানিয়েন, যুবকটি সুস্থ এবং স্বাভাবিক। তার ভেতরে কোনো অস্বাভাবিকতা নেই।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/জিএসি-১১


সূত্র : যুগান্তর