করোনা মহামারিতে বিদেশি শ্রমিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারির প্রায় ১৬ মাস পর তা তুলে নিল এশিয়ার অন্যতম ধনী দেশ মালয়েশিয়া। সংকট কাটাতে বিদেশি শ্রমিকদের প্রবেশে অনুমতি দিল দেশটি। তবে, সব ধরনের শ্রমিক নয়, আপাতত শুধু চাষ খাতে নিয়োজিত শ্রমিকরা দেশটিতে ফিরতে পারবেন।

এছাড়াও অর্থনীতিকে চাঙা করতে নভেম্বর মাস থেকে আন্তর্জাতিক পর্যটকদের জন্য সীমান্ত উন্মুক্ত করছে দেশটি। শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এসব বিষয় জানায় ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

রয়টার্স জানায়, এ ব্যাপারে মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রী ইসমাইল সাবরি ইয়াকুব একটি বিবৃতি দিয়েছেন। সেখানে বলা হয়েছে, মহামারি ব্যবস্থাপনায় গঠিত বিশেষ কমিটি আজ (২২ অক্টোবর) বিদেশি শ্রমিকদের প্রবেশের জন্য প্রস্তাবিত স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউর নিয়ে একমত হয়েছে। বিশেষ করে চাষ খাতে শ্রমিকদের চাহিদা পূরণের জন্য এই সিদ্ধান্ত। অন্য খাতের অভিবাসী শ্রমিকদের কোটা ও প্রবেশ এখনও বাতিল রয়েছে।

গত মাসে দেশটির সরকার জানিয়েছিল, রোপণ খাতে শ্রমিক সংকট দূর করতে ৩২ হাজার শ্রমিককে ফেরানোতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পাম তেল উৎপাদনকারী দেশ মালয়েশিয়া গ্লাভস থেকে শুরু করে আইফোনের যন্ত্রাংশ উৎপাদনে ২০ লাখ নিবন্ধিত অভিবাসী শ্রমিকের ওপর নির্ভরশীল।

রাবার গ্লাভস খাতের পক্ষ থেকে বিদেশি শ্রমিকদের ফিরে আসার অনুমতি দেওয়ার অনুরোধ জানানো হলেও তাতে সরকারের সায় মেলেনি।

খবরে আরও বলা হয়েছে, অর্থনীতিকে চাঙা করতে মধ্য নভেম্বর থেকে নির্দিষ্ট আন্তর্জাতিক ভ্রমণকারীদের গ্রীষ্মমণ্ডলীয় ছুটির দ্বীপ ল্যাংকাউই দেখার অনুমতি দেবে মালয়েশিয়া। মহামারির পর এটিই এমন প্রথম উদ্যোগ। এক্ষেত্রে, পর্যটকদের অবশ্যই একটি নেতিবাচক কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনেশন সার্টিফিকেট দেখাতে হবে এবং ৮০ হাজার ডলারের ভ্রমণ বীমা থাকতে হবে।

সিলেটভিউ২৪ডটকম/পিডি


সূত্র : ঢাকাটাইমস