ভারতের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজ্য কর্ণাটকে এক কিশোরীর সাথে খারাপ আচরণ করায় এক ব্যক্তিকে বেধড়ক মারপিটের পর নগ্ন করে ঘোরানোর অভিযোগ উঠেছে। রাজ্যের হাসান জেলার মহারাজা পার্কে ওই ব্যক্তিকে মারধরের পর শহরের একটি ব্যস্ত ট্রাফিক জংশনে নগ্ন করে ঘুরিয়েছে ক্ষুব্ধ জনতা।

কর্ণাটক পুলিশের তথ্য অনুযায়ী, কিশোরীকে উত্ত্যক্তকারী ব্যক্তির নাম মেঘরাজ। তিনি বিজয়পুরা জেলার বাসিন্দা। হাসান শহরে নির্মাণশ্রমিক হিসাবে কাজ করতেন তিনি।


সিলেট ভিউ'র খবর নিয়মিত পেতে

দিয়ে যুক্ত থাকুন

বৃহস্পতিবার দেশটির সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মহারাজা পার্কে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন মেঘরাজ। এ সময় তিনি এক কিশোরীকে উত্ত্যক্ত করেন। স্থানীয়রা এটি দেখার পর তাকে আটক করে মারধর করেন। পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ার পরিবর্তে তারা ওই ব্যক্তিকে বেধড়ক মারধর এবং নগ্ন করেন। পরে শহরের ব্যস্ত ট্রাফিক জংশন হেমাবথির কাছে নগ্ন অবস্থায় ঘোরানো হয় তাকে।

পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেন। পরে তাৎক্ষণিকভাবে মেঘরাজকে পুলিশি জিম্মায় নেওয়া হয়। এ ঘটনা তদন্তের পর হাসান শহর পুলিশ ওই ব্যক্তিকে মারধর এবং নগ্ন করে ঘোরানোর দায়ে অজ্ঞাতনামা চারজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে।

পুলিশ বলছে, ঘটনাস্থলে একদল জনতা উত্ত্যক্তের কথা বললেও ওই কিশোরী মেহরাজের বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ করেননি। কিন্তু ওই ব্যক্তিকে নির্মমভাবে মারধর এবং নগ্ন করে জনসম্মুখে ঘোরানো হয়েছে। এ ঘটনার পর মেহরাজ পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অজ্ঞাতনামা চারজনের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৪১, ৩২৩, ৫০৪ এবং ৫০৬ ধারায় এফআইআর দায়ের করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সিলেটভিউ২৪ডটকম /ডেস্ক/জিএসি-১৯


সূত্র : ঢাকা পোস্ট