প্রতিকী ছবি

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার ৫টি চা বাগানের শিশুদের সময় মতো জন্মনিবন্ধন না করায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারছে না চা বাগানের শিশুরা।

 


এ কারনে চা বাগানের প্রাথমিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে চা বাগানের শিশুরা।

 

জানা যায়, গত ৩ বছর ধরে দেশের মধ্যে করোনা দেখা দিলে বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় চা বাগানের শিশুদের পাঠ্য কার্যক্রম মারাত্মক ভাবে ব্যাহত হয়েছে। বর্তমানে মাধবপুর উপজেলার জগদীশপুর, বৈকন্ঠপুর, নোয়াপাড়া, তেলিয়াপাড়া ও সুরমা চা বাগানের ১৪ ভাগ শিশুর জন্মনিবন্ধন করা হয়নি। ইউনিয়ন তথ্য ও সেবা কেন্দ্রে গিয়ে ভালো সেবা না পাওয়ায় চা বাগানের সহজ সরল মানুষ শিশুদের জন্মনিবন্ধন করতে আগ্রহী নন। চা বাগানে পিছিয়ে পড়া চা শ্রমিক শিশুদের শতভাগ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তি নিশ্চিত করা লক্ষে হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক ঈশরাত জাহান বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন।

 

এর অংশ হিসেবে রবিবার সকালে সুরমা চা বাগানে বিনামূলে জন্মনিবন্ধন করার লক্ষে ৫ বাগানের শ্রমিক নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে বিশেষ ক্যাম্পেইন করে মাধবপুর উপজেলা প্রশাসন।

 

মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মনজুর আহসানের সভাপতিত্বে প্রধান হিসেবে বক্তব্য রাখেন- স্থানীয় সরকার উপ পরিচালক মুহাম্মদ সাদিকুর রহমান।

 

অন্যন্যাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোছাঃ তাসমিন জাহান, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তুহিন হাসান, চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন চৌধুরী, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সিদ্দিকুর রহমান, বাগান ব্যবস্থাপক দিপংকর সিনহা, সহকারী ব্যবস্থাপক জাকির হোসেন, সহকারী ব্যবস্থাপক মিরন হোসেন, সহকারী ব্যবস্থাপক মনির হোসেন, ভ্যালী সভাপতি রবীন্দ্র গৌড়, ইউপি সদস্য আব্দুল লতিফ, এনামুল হক, সাইমুন মুরমু ও ফুল মিয়া প্রমুখ।

 


সিলেটভিউ২৪ডটকম/শামীম/এসডি-২০