সিলেট মহানগরে কিছুতেই থামছে না মোটরসাইকেল চুরি। শনিবারও (৪ মার্চ) পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে মদিনা মার্কেটে রাস্তার পাশে রাখা এক সাংবাদিকের মোটরসাইকেল চুরির চেষ্টা চালায় চোর। তবে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছে সেই বাইক। 

সাংবাদিক তাঁর গাড়ির কাছে ফিরে দেখেন- পেছনের তালা ভাঙা, বাইকের ঘাড়ের কাছে ব্যাটারির সঙ্গে যুক্ত ইলেক্ট্রিক তারে টানা-হেঁচড়ার চিহ্ন। গত ৩ সপ্তাহে সিলেট মহানগর ও শহরতলিতে অন্তত ১০টি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে বলে ভুক্তভোগিরা বলছেন।


এদিকে, সিলেট মহানগরের পুলিশ মোটরসাইকেল চোর চক্রের কাউকে চিহ্নিত করতে না পরলেও এ চক্রের এক সক্রিয় সদস্যকে শনাক্ত করতে পেরেছে শ্রীমঙ্গল থানাপুলিশ। তারা সেই চোরের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ করে পুরস্কারও ঘোষণা করেছে। সেই ঘোষণায় বলা হয়- চিহ্নিত সেই মোটরসাইকেল চোরকে কেউ ধরিয়ে দিতে পারলে তাকে পুলিশের পক্ষ থেকে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার দেওয়া হবে। 

শুক্রবার (৩ মার্চ) দুপুরে ‘Sreemangal Thana’ নামক ফেসবুক আইডি থেকে এ বিষয়ে একটি পোস্ট করা হয়। এতে লেখা- ‘ছবির ব্যক্তি একজন কুখ্যাত মোটরসাইকেল চোর। সে মৌলভীবাজারের ওয়াবদা গেইটে অবস্থিত সাউথ সিলেট কো.-এর সামনে থেকে সদ্য একটি মোটরসাইকেল চুরি করিয়াছে। গোপন সূত্রে জানা যায়- তাহার বাড়ি শ্রীমঙ্গল থানা এলাকায়। তাহাকে কোনো ব্যক্তি ধরিয়া দিতে পারলে বা তাহার সম্পর্কে তথ্য দিয়ে গ্রেফতারে সহায়তা করতে পারলে নগদ ৫০,০০০/- (পঁঞ্চাশ হাজার) টাকা পুরষ্কার প্রদান করা হইবে। 
অনুরোধক্রমে-অফিসার ইনচার্জ, শ্রীমঙ্গল থানা, মৌলভীবাজার।’

একই ফেসবুক আইডি থেকে এর আগে একট পোস্টে বলা হয়- ‘সিলেটের দক্ষিণ সুরমা থেকেও সম্প্রতি একটি মোটরসাইকেল সে চুরি করেছে।’

এ বিষয়ে শুক্রবার রাতে শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার সিলেটভিউ-কে বলেন- শুধু জানতে পেরেছি, ওই চোরের বাড়ি শ্রীমঙ্গল থানা এলাকায়। তবে পুর্ণ ঠিকানা পাইনি। আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি। 

তিনি বলেন- গোপন সূত্রে জানতে পেরেছি, পুরো সিলেট বিভাগে ওর নেটওয়ার্ক। বাইক চুরি করে মুহুর্তে উধাও হয়ে যায় সে। তাকে কেউ ধরিয়ে দিতে পারলে আমাদের পক্ষ থেকে অর্ধ লক্ষ টাকা পুরস্কার প্রদান করা হবে।

এদিকে, একটি সূত্র জানিয়েছে- পুলিশ ফেসবুকে যার ছবি প্রকাশ করেছে সে শ্রীমঙ্গল উপজেলার শাহজিবাজার এলাকার আব্দুল করিমের ছেলে ইপ্তি। ইতিপূর্বে সে নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়ানোর দায়ে আটকও হয়েছে। ২০২১ সালে ডিসেম্বরে শ্রীমঙ্গলে এক নারীর কাছ থেকে এক লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। 

উল্লেখ্য, সিলেট মহানগরে হঠাৎ আশঙ্কাজনক হারে বেড়েছে মোটরসাইকেল চুরি। গত তিন সপ্তাহের ব্যবধানে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে সিলেটে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য মহানগর পুলিশের কাছে নেই।

ভুক্তভোগীদের অভিযোগ, নানা রকমের তালা লাগিয়েও চোরদের হাত থেকে মোটরসাইকেল রক্ষা করা যাচ্ছে না। এক মোচড়েই তালা ভেঙে বাইক নিয়ে উধাও হয়ে যায় চোর। এ বিষয়ে তারা সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা ও সাধারণ ডায়েরি করলেও চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলগুলো উদ্ধার হচ্ছে না, ধরা পড়ছে না চোর।

আর পুলিশ বলছে- খোয়া যাওয়া মোটরসাইকেল উদ্ধার করা না গেলেও এ কয়েকদিনে সন্দেহভাজন কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তবে এখন পর্যন্ত এ চক্রের চিহ্নিত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

গত বছরের শেষদিকেও সিলেটে চুরি হয় বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেল। ভুক্তভোগিদের বক্তব্য- মোটরসাইকেল ‍চুরির সঙ্গে জড়িত সংঘবদ্ধ চোর চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তার করতে না পারলে চুরি থামবে না। জিডির পর চুরির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে পুলিশ। এরপর আর খোঁজ থাকে না। পরে নিজ উদ্যোগে নিজের চুরি যাওয়া মোটরসাইকেলের সন্ধান করতে করতে এক সময় থেমে যেতে হয়।

এ বিষয়ে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) সুদীপ দাস সিলেটভিউ-কে দেওয়া এক বক্তব্যে বলেন- এ বিষয়ক খুব বেশি তথ্য আমাদের কাছে নেই।

তিনি বলেন- সিলেটে সম্প্রতি চুরি হওয়া মোটরসাইকেলগুলোর মধ্য থেকে শাহপরাণ এলাকা থেকে চুরি হওয়া একটি বাইক কিছুদিন আগে চোরেরা রাস্তার পাশে ফেলে রেখে যায়। আর কোনো বাইক উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তবে চুরি ঠেকাতে সচেষ্ট রয়েছে পুলিশ। গত ক’দিনে সন্দেহভাজন কয়েকজনকে আটকও করা হয়েছে। আটককৃতরা ছিনতাই কাজের সঙ্গেও জড়িত। তাদেরকে পরবর্তীতে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। 

সুদীপ দাস আরও বলেন- সিলেট মহানগরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য পুলিশের আরও লোকবল প্রয়োজন। কিন্তু তা নেই। তাই চোরদের তৎপরতাও সিলেটে একটু বেশি। তবে ঘটনার পর আমাদের দ্বারস্থ হলে ভুক্তভোগিকে আমরা সর্বাত্মক সহযোগিতা করি। আরেকটি বিষয় হচ্ছে- চোরেরা সিলেট থেকে মোটরসাইকেল চুরি করে অল্প সময়ের মধ্যেই শহর বা জেলার বাইরে নিয়ে যায় এবং গাড়ির রং, ডিজাইন বা অনেক যন্ত্রাংশ বদলে ফেলে। তাই অনেক সময় মোটরসাইকেল উদ্ধারে পুলিশকে বেগ পেতে হয়।


সিলেটভিউ২৪ডটকম / ডালিম