শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) হিসাব দপ্তরের অডিট এন্ড একাউন্টস অফিসার মৃন্ময় দাশ ঝুটনের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগের করা মামলার প্রতিবাদে বিবৃতি দিয়েছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐক্যবদ্ধ কর্মকর্তা পরিষদ।
 

মঙ্গলবার (৭ মার্চ) দুপুরে পরিষদের সভাপতি এ এস এম খয়রুল আক্তার চৌধুরী এবং সদস্য সচিব শাহাদাত হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত যৌথ বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়।
 


বিবৃতিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐক্যবদ্ধ কর্মকর্তা পরিষদের সদস্য ও হিসাব দপ্তরের অডিট এন্ড একাউন্টস অফিসার মৃন্ময় দাশ ঝুটনের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন ও হয়রানীমূলক মামলা দায়ের করার প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছি। এ ধরনের ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিনষ্টের ইঙ্গিত বলে ধারণা করছে পরিষদ। তাই সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে প্রকৃত দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানাচ্ছে।
 

এ বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐক্যবদ্ধ কর্মকর্তা পরিষদের সদস্য সচিব শাহাদাত হোসেন বলেন, এমন মামলায় আমরা তীব্রভাবে ক্ষুব্ধ, তবে শঙ্কিত নই। আমরা ঐক্যবদ্ধ আছি। যেকোনো ষড়যন্ত্র ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে মোকাবেলা করা হবে। আমরা এই ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে দোষীদের শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।
 

এর আগে গত ৬ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে কথা কাটাকাটির জের ধরে এদিন রাতে শাহপরান হলে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক উপ-দপ্তর সম্পাদক সজীবুর রহমান এবং ছাত্রলীগ নেতা মেহেদী হাসান স্বাধীনের সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।
 

এতে স্বাধীনের সমর্থক ফারদিন কবির গত ১৩ ফেব্রয়ারি আদালতে মামলা করেন।

মামালায় সজীব ও তার সমর্থক ৯ জনের নামউল্লেখ ও অজ্ঞাত পরিচয়ে আরও ১৪/১৫ জনকে আসামী করা হয়।

এর ১০ দিন পর আদালতে গিয়ে পাল্টা মামলা করেন সজীবের সমর্থক রওফুন জাহান মিলিয়াম।

এই মামলায় ফারদিন কবির, স্বাধীন ও শাবির হিসাব দপ্তরের অডিট এন্ড একাউন্টস অফিসার ও শাখা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক মৃন্ময় দাশ ঝুটনসহ ১৫ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত পরিচয়ে ৭/৮ জনকে আসামী করেন সজীবের সমর্থক মিলিনিয়াম।
 

আসামী করার ১০ দিন পর এ বিবৃতি দিল হিসাব দপ্তরের ওই কর্মকর্তার সহকর্মীরা।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম/নোমান/এসডি-০২