মিফতাহ সিদ্দিকী। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি দল (বিএনপি) রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। তার শুরুটা ছিলো একেবারে তৃণমুলে। ক্যাপাসে ছাত্ররাজনীতিতে হাতেখড়ি। নব্বইয়ের স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে রাখেন সক্রিয় ভূমিকা। এরপর বিভিন্ন সময় নানা দায়িত্ব পালন করেছেন। করেছেন কারাভোগও। অবশেষে দীর্ঘ ত্যাগ-তিতিক্ষার পর মূল্যায়িত হয়েছেন এই রাজনীতিক। ঠাঁই পেয়েছেন কেন্দ্রে। নির্বাচিত হয়েছেন দলের কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক।

 


শনিবার (১৫ জুন) বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে মিফতাহ সিদ্দিকীকে কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক করা বিষয়টি জানানো হয়। সর্বশেষ তিনি সিলেট মহানগর বিএনপির সাবেক সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করছেন।

 

সিলেট মহানগর বিএনপির একটি সূত্র জানায়- বিএনপির রাজনীতিতে এবার গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে তারাই আসছেন যাদের অতীত ভূমিকা সক্রিয় ও উজ্জ্বল। ঢানা ৪ মেয়াদের ক্ষমতা থাকা আওয়ামী লীগ সরকারের এই সময়ে আন্দোলন সংগ্রামে ভূমিকা, নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ও দলের আনুগত্য প্রকাশ, বিশেষ করে ২৮ অক্টোবরের পর থেকে সরকারত পতনের আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকাসহ নানা বিষয়ে পর্যালোচনা করেই হাইকমান্ড নতুন দায়িত্ব বন্টন করছেন। এর ধারাবাহিকতায় দলের নিবেদিত রাজনীতিবীদ মিফতাহ সিদ্দিকী ত্যাগের পুরুস্কার পেয়েছেন।

 

সিলেট জেলা বিএনপির এক দায়িত্বশীল নেতা জানান,  সিলেট বিভাগে বিএনপিকে শক্তিশালী করতে নিরলসভাবে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন মিফতা সিদ্দীকি। রাজপথে থেকে সরকার বিরুধী সকল আন্দোলনে তার বলিষ্ঠ নেতৃত্ব নেতাকর্মীদের প্রতিনিয়ত উজ্জীবিত করছে। একজন্য দেশ নায়ক তারেক রহমান তাকে পুরুস্কৃত করেছেন।

 

মিফতাহ সিদ্দিকী এমসি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি ছিলেন। পরে তিনি সিলেট মহানগর ছাত্রদলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক হিসেবে কাজ করেছেন। এছাড়াও কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-প্রচার সম্পাদক ও সদস্য ছিলেন।

 

৯০ পরবর্তী সিলেট ছাত্রদলকে সুসংগঠিত করতে কাজ করা সাবেক এই ছাত্রনতো গত সিলেট মহানগর বিএনপির সম্মেলনের পূর্বে সদস্য সচিবের দায়িত্ব পালন করেছেন। এরআগে তিনি মহানগর বিএনপি সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন।

 

এ বিষয়ে মিফতাহ সিদ্দিকী বলেন, দলের চেয়ারপারসন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান আমার উপর যে দায়িত্ব দিয়েছেন জীবনের শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে হলেও তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করব। আমাকে এই পদে মনোনীত করায় আগামীর রাষ্ট্রনায়ক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। তিনি আরো জানান, এ অর্জন শুধু আমার নয়, এ অর্জন সমগ্র সিলেটের বিএনপি পরিবারের। তার উপর যে দায়িত্ব অর্পন করা হয়েছে তা যথাযথভাবে পালনে তিনি সিলেট বিভাগের বিএনপির সকল নেতাকর্মীদের সহযোগীতা কামনা করেছেন।

 

সিলেটভিউ২৪ডটকম / মাহি